কাতারের বাজবাহাদুর! বাজপাখির যত্ন মানুষের থেকেও বেশি

120

কাতারি বাজের (Qatar Falcon) দুনিয়ায় স্বাগত। দুরন্ত বাজপাখি আরব দুনিয়ার শৌর্য। (Qatar WC) বিশ্বকাপের বল দখলের যুদ্ধের মাঝে মরু এলাকায় চলছে বাজপাখি (Falcon) নিয়ে ধুন্ধুমার কান্ড। এ রোমাঞ্চকর বাজবাহাদুরদের দেখে চমকে যাচ্ছেন বিভিন্ন দেশের সমর্থকরা। তথ্য: সুজানা ইব্রাহিম মোহনা

কাতারের জাতীয় পাখি বাজ। তীক্ষ্ণ চোখের বাজ নিয়ে মরুভূমিতে শিকার হয়। আরব দুনিয়ায় অত্যন্ত জনপ্রিয় বাজ নিয়ে শিকা পাঁচ হাজার বছরের পুরনো এক রীতি। বাজ নিয়ে শিকার পদ্ধতি খুবই রোমাঞ্চকর।

  • কাতারে বাজপাখির পরিচর্যা মানুষের থেকেও বেশি !
  • এখানেই আছে বিশ্ববিখ্যাত বাজপাখি হাসপাতাল          

পুরো আরব দুনিয়ার মতো কাতারিরা বাজ পুষতে পছন্দ করেন। বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে বাজ নিয়ে প্রবল আগ্রহ তৈরি হয়েছে কাতারে।

ঝাঁ চকচকে অত্যাধুনিক নগরায়ণে কাতার বিশ্বের কাছে বিস্ময়। দেশটির রাজধানী শহর দোহা ইমারতি বাহারে চমকে দেয়। তেল বাণিজ্যের দৌলতে কাতারে দিনার-রিয়াল-ডলার উপচে পড়ে।

এই ঝকঝকে কাতারের অন্যতম আকর্ষণ দোহা শহরের শতবর্ষ পুরনো বাজার। এখানেই আছে শিকারী বাজের অদ্ভুত দুনিয়া। দোহার বাজ-বাজার চমকে দিচ্ছে সবাইকে। তবে বাজপাখি কেনার সাধ্য নেই সাধারণের। বাজ নিয়ে শিকার করেন একমাত্র ধনকুবেররা।

কাতারে বাজপাখির পরিচর্যা মানুষের থেকেও বেশি ! এখানেই আছে বিশ্ববিখ্যাত বাজপাখি হাসপাতাল। বাজ বাজার দেখে মুগ্ধ বিভিন্ন দেশের সমর্থকরা। শতবর্ষ পুরনো দোহার বাজারে বাজের ঝলক এমনই। কাতারি বাজ মরু দেশের জীবনের অঙ্গ।