ED: নিয়োগ দুর্নীতির সব তথ্য পার্থকে জানাতেন তৃ়ণমূল বিধায়ক মানিক

59
Manik Bhattacharya

মানিকের জোড় পার্থ, উঠে এল বিস্ফোরক তথ্য। টেট নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের (Partha Chatterjee) পাশাপাশি প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের প্রাক্তন সভাপতি ও তৃ়ণমূল কংগ্রেস বিধায়ক মানিক ভট্টাচার্যকে (Manik Bhattacharya) জিজ্ঞাসবাদ শুরু করেছে সিবিআই ও ইডি৷

ইডির তরফে যে চার্জশিট পেশ করা হয়েছে, তাতে একাধিক তথ্য হাতে পাচ্ছে সিবিআই৷ ইডি সূত্রে খবর, নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ে একাধিকবার মানিক ভট্টাচার্যের সঙ্গে দেখা করে পার্থ চট্টোপাধ্যায়। ইডির প্রশ্নের জবাবে পার্থ জানিয়েছেন, মানিক প্রাইমারি বোর্ডের চেয়ারম্যান ছিলেন, তাই তার সঙ্গে যোগাযোগ রাখতেন তিনি।

একইসঙ্গে মানিকের গতিবিধি নিয়ে পার্থকে অবগত করেছেন এক ব্যক্তি৷ পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ফোন থেকেই সেই তথ্য পেয়েছে ইডি। সেই ব্যক্তির কথায়, মানিক ভট্টাচার্য যাতা ভাবে টাকা নিচ্ছে। কোভিডের সময়ে কলেজ বন্ধ থাকা সত্ত্বেও ছাত্রদের কাছ থেকে প্রাইভেটে বেড প্রতি ৫০০ টাকা করে নিচ্ছে। নদীয়াতে প্রাইমারি টেট ইন্টারভিউ হয়ে গিয়েছে। কিন্তু মানিক ভট্টাচার্য চেয়ারম্য়ানকে মার্কস ছাড়া ব্ল্যাঙ্ক ডকুমেন্ট দেওয়ার জন্য চাপ দিচ্ছে। আবার টাকা নিয়ে করবে। আবার কেস হবে৷

এমনিতেই নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেফতার করেছে ইডি৷ তার ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখ্যোপাধ্যায়ের বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে প্রায় ৫০ কোটি টাকা। নিয়োগ দুর্নীতিতে পার্থর বিরুদ্ধে চার্জশিট পেশ করেছে ইডি। সেখানেই পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও অর্পিতা মুখ্যোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠতা নিয়ে একাধিক তথ্য পেয়েছে তদন্তকারী সংস্থা। নামে-বেনামে একাধিক প্রায় ১০০ কোটি টাকার অধিক সম্পত্তির হদিশ মিলেছে। একইসঙ্গে ইডি জানিয়েছে, অর্পিতার ৩১ টি জীবনবীমার টাকা মেটাতেন পার্থ৷

একইসঙ্গে ইডি জানিয়েছে, অর্পিতা মুখ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, উদ্ধার হওয়া ৪৯.৮ কোটি টাকা ও ৫ কোটি টাকার সোনার মালিক পার্থ চট্টোপাধ্য়ায়। তিনি-ই বলতে পারবেন টাকার উৎস। নিজের ও মায়ের নিরাপত্তার কথা ভেবে এতদিন সত্য গোপন করেছিলেন। তদন্তের ক্ষেত্রে অর্পিতা বিরাট ফ্যাক্টর হতে পারেন৷ এমনটাই ধরেই এগোচ্ছে তদন্তকারী সংস্থা৷ এমনটাই সূত্রে খবর।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)