কিরিয়াকুর চোট নিয়ে মুখ খুললেন ইস্টবেঙ্গল কোচ কনস্টাটাইন

23
Charalambos Kyriakou injury

যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে শুক্রবার ওড়িশা এফসির বিরুদ্ধে ম্যাচের প্রথমার্ধে ২-০ গোলে এগিয়ে ছিল ইস্টবেঙ্গল এফসি (East Bengal FC) ।দ্বিতীয়ার্ধে পেদ্রোর জোড়া গোল এবং জেরি,নন্দ কুমারের গোলে তিন পয়েন্ট পকেটে পুড়ে ঘরের ফেরার তোড়জোড় শুরু করেছে ওড়িশা এফসি।

খেলা শেষে ইস্টবেঙ্গল কোচ স্টিফেন কনস্টাটাইন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে টিমের ইনজুরি ইস্যুতে মুখ খোলেন।সাংবাদিকরা কনস্টাটাইনের কাছে চ্যারিস কিরিয়াকুর অবস্থা এখন কেমন আছে জানতে চাইলে বলেন,”ও আপাতত হাসপাতালে রয়েছে। ভ্রু-র ওপর সেলাই করতে হয়েছে। নিশ্চিত হওয়ার জন্য চিকিৎসকরা এমআরআই করতে বলেছেন। আশা করি, ও দ্রুত সেরে উঠবে। ওর চোটটাও আমাদের ক্ষতি করল।”

প্রসঙ্গত,ওড়িশার বিরুদ্ধে প্রথমার্ধে ২-০ গোলে এগিয়ে ছিল লাল হলুদ শিবির। কিন্তু খেলার দ্বিতীয়ার্ধে ইস্টবেঙ্গল খেলোয়াড়দের মনঃসংযোগে চিড় ধরে।দু’গোলে এগিয়ে যাওয়ার আত্মতুষ্টি থেকে একটা গা ছাড়া মনোভাব বিপদ ডেকে আনে গোটা শিবিরে। মনঃসংযোগের অভাব সঙ্গে আত্মতুষ্টির মিশেলে গেম থেকে হারিয়ে যেতেই সুযোগ লুফে নেয় ‘ইস্টার্ন ড্রাগনর্স’।

ইস্টবেঙ্গল এফসির ডিপ ডিফেন্সে ওড়িশা এফসির খেলোয়াড়রা ‘সুপার সাইক্লোনের’ মতো আছড়ে পড়ে।এতেই লাল হলুদ ডিফেন্স লাইনে ফাটল চওড়া হয়ে যায়।এমনিতেই ইস্টবেঙ্গল ডিফেন্স নিয়ে ভক্তরা আশঙ্কিত থাকে।গত দুই ইন্ডিয়ান সুপার লিগে ‘ডিফেন্সিভ ল্যাপস ‘ ভুগিয়েছিল ইস্টবেঙ্গলকে।চলতি আইএসএলেও রেড এন্ড গোল্ড ব্রিগেড নিজেদের পুরনো রোগ থেকে বেরিয়ে আসতে পারলো না।তাই লাল হলুদ জনতার মনে ফের একবার লিগে ‘লাস্ট বয়ে’র ভ্রুকুটি উকি দিচ্ছে।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)