Monday, January 30, 2023

পেট্রল-ডিজেল বাই বাই: টাটার এই গাড়ি একবারের চার্জে চলবে ৩৫০ কিমি

- Advertisement -

নিউজ ডেস্ক: ভারতসহ সারা বিশ্বে ইলেকট্রিক গাড়ির চাহিদা খুব দ্রুত হারে বাড়ছে। এখন মানুষ পেট্রল এবং ডিজেলের পরিবর্তে বৈদ্যুতিক গাড়ি চালাতে পছন্দ করছে। কিন্তু, ইলেকট্রিক গাড়ির দাম এখনও গ্রাহকদের জন্য একটি চ্যালেঞ্জ। সেই কথা মাথায় রেখে ভারতীয় অটোমোবাইল কোম্পানি টাটা মোটরস সস্তা দামের ইলেকট্রিক গাড়ি চালু করার কথা ঘোষণা করেছে৷

electric car tata tigor ev

টাটা মোটরসের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট বলা হয়েছে, ৩১ অগস্ট ইলেকট্রিক গাড়ি টাটা টিগোর ভারতে লঞ্চ করবে৷ আত্মপ্রকাশে আগেই এই গাড়ি নিয়ে মানুষের মধ্যে প্রচণ্ড উৎসাহ রয়েছে। কারণ এটি টাটার অন্যতম বিক্রিত গাড়ি। সংবাদমাধ্যমের রিপোর্ট অনুসারে, এই গাড়িটি ডিলারদের কাছে পৌঁছতে শুরু করেছে৷ একই সঙ্গে গাড়ির কিছু বৈশিষ্ট্য বিবরণও প্রকাশ করা হয়েছে৷ তাতে বলা হয়েছে, নতুন টাটা টিগোর ইভি একবারের চার্জে ৩৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত চলতে পারবে।

- Advertisement -

আরও পড়ুন : ভারতের গাড়িবাজারে শিগগির আসছে নতুন চেহারার Maruti Baleno

সম্প্রতি টাটা মোটরস নতুন টিগোর একটি টিজার ভিডিও বাজারে ছেড়েছে৷ তাতে গাড়ির মডেল এবং বৈশিষ্ট্যগুলি প্রকাশ করা হয়েছে। ভিডিও অনুসারে, জিপট্রন ইভি প্রযুক্তি টাটা টিগোর ইভিতে সর্বাধিক বিক্রিত বৈদ্যুতিক এসইউভি টাটা নেক্সন ইভির মতো ব্যবহার করা হয়েছে। জিপট্রন চালিত বৈদ্যুতিক যান সম্পর্কে টাটা মোটরস দাবি করেছে, এর ব্যাটারির ক্ষমতা ২৫০ কিলোমিটার। এখন নতুন পাওয়ারট্রেনে ব্যাটারির ক্ষমতা আরও ভালো হবে বলে আশা করা হচ্ছে। টাটা টিগোর ইভি ১০-১২ লক্ষ টাকার মধ্যে দেওয়া যেতে পারে।

টাটার এই বৈদ্যুতিক গাড়িতে ৫৫kW বৈদ্যুতিক মোটর এবং ২৬kWh লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি প্যাক থাকবে৷ যা ৭৪bhp (৫৫kW) এবং ১৭০Nm পর্যন্ত টর্ক উৎপন্ন করতে সক্ষম হবে। দাবি করা হচ্ছে , মাত্র ৫.৯ সেকেন্ডে এটি ৬০ কিলোমিটার গতিতে চলতে সক্ষম হবে। টাটা মোটরস 8 বছরের ব্যাটারি লাইফ এবং এই গাড়িতে ১,৬০,০০০ কিমি পর্যন্ত গ্যারান্টি দেবে। দ্রুত চার্জিং পয়েন্টে এর ব্যাটারি মাত্র এক ঘন্টার মধ্যে ৮০ শতাংশ পর্যন্ত চার্জ করা যায়। বাড়িতে চার্জ করতে ৮.৫ ঘন্টা সময় লাগবে। ইতিমধ্যে টাটা মোটরসের নেক্সন ইভি বর্তমানে ভারতে প্রচুর বিক্রি হচ্ছে এবং এটি একবারের চার্জে ৩১২ কিলোমিটার চালাতে পারেন।

টাটা মোটরসের মাস্টারস্ট্রোক
টাটা মোটরসের এই দাবি মাস্টারস্ট্রোকের চেয়ে কম নয়। এর ফলে শুধু টাটার গাড়ি বিক্রিই বাড়বে না, অন্য গাড়ি প্রস্তুতকারীরাও তাদের বৈদ্যুতিক গাড়ির দাম কমাতে বাধ্য হবে। কিছু মিডিয়া রিপোর্টের মাধ্যমে খবরও আসতে শুরু করেছে, টাটার ইলেকট্রিক গাড়ি চালু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই অনেক কোম্পানি সস্তায় নতুন ইলেকট্রিক গাড়ি চালু করার পরিকল্পনা করছে। সামগ্রিকভাবে গ্রাহকরা উপকৃত হবেন।