19 C
Kolkata
Sunday, February 5, 2023

ক্রমশ বাড়ছে ধর্ষণের মিথ্যা মামলা, জানিয়ে দিল দিল্লি হাইকোর্ট

- Advertisement -

নিউজ ডেস্ক: কয়েক বছর আগেই এই রাজ্যের সর্বোচ্চ আদালত জানিয়েচ জানিয়েছিল, যৌন নিগ্রহ এবং ধর্ষণের মিথ্যা মামলা ক্রমশ বেড়েই চলেছে। শুধু তাই নয়, সহবাসের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণের মামলাও আইনগতভাবে কতটা যুক্তিযুক্ত তা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছিল আদালত। এবার যৌন নিগ্রহ এবং ধর্ষণের মিথ্যা অভিযোগের সংখ্যা ক্রমশ বেড়েই চলেছে। তা দমনে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। একটি অভিযোগের ভিত্তিতে জানিয়ে দিল দিল্লি হাই কোর্ট।

- Advertisement -

আরও পড়ুন জনপ্রিয়তা কমছে মোদীর, প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে দ্রুত এগোচ্ছেন মমতা

- Advertisement -

দিল্লির আমন বিহার থানায় ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ ধারায় মামলা রুজু হয়েছিল। সেই ধর্ষণের মামলা প্রত্যাহার করতে চেয়ে আবেদন জানিয়েছিলেন অভিযোগকারী। সেই মামলার শুনানিতে বিচারপতি সুব্রহ্মণ্যম প্রসাদ বলেন, “অসৎ উদ্দেশে এই ধরনের মামলা দায়ের হয়। তারা ভাবে, অভিযুক্ত ভয়ে তাদের দাবি মেনে নেবে। অন্যায়কারীদের তাদের কাজের জন্য কড়া সাজা না দিলে , এই ধরনের ফালতু মামলা বন্ধ করা কঠিন হবে।” মামলাটি খারিজ করে দিয়েছে দিল্লি হাইকোর্ট।

আরও পড়ুন সংবর্ধনা মঞ্চেই অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভারতের সোনার ছেলে

মামলা খারিজ করা নিয়ে বিচারপতি প্রসাদের মন্তব্য, “ধর্ষণের মিথ্যা অভিযোগ কোনও ব্যক্তির জীবন ধ্বংস করে দিতে পারে। তাঁর সম্মান নষ্ট হয়। সেরকমভাবেই একজন মহিলাকেও মানসিকভাবে বিধস্ত করে দেয় ধর্ষণের ঘটনা। তার পরেও ধর্ষণের মতো অভিযোগকে মানুষ লঘু চোখে দেখে।”

আরও পড়ুন এবারে শীতে বড় পর্দায় আসতে চলেছে দেব-রুক্মিণীর ‘কিশমিশ’, প্রকাশ্যে ছবির অ্যানিমেটেড টিজার

আদালতের পর্যবেক্ষণ, ধর্ষণের মিথ্যা অভিযোগ কোনও ব্যক্তির জীবন ও জীবিকা ধ্বংস করে দিতে পারে। তাঁর সম্মান নষ্ট হয়। সারা জীবন নিজের পরিবারের মুখোমুখি হতে পারেন না। যন্ত্রণা বয়ে বেড়াতে হয়। শুধু ব্যক্তিগত আক্রোশ মেটানোর জন্য এই ধরনের গুরুতর অভিযোগ আনা উচিত নয়। ভবিষ্যতে এই ধরণের মিথ্যা অভিযোগ পেলে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও জানিয়েছে হাইকোর্ট।