নাদুস-নুদুস টাকা খাওয়া নেতারা নিরাপত্তায় থাকতে চায়, TMC-BJP কে আক্রমণ সেলিমের

20

বিজেপির (BJP) নবান্ন অভিযানের পর আহত পুলিশ কর্মীদের দেখতে গিয়ে তৃণমূল (TMC) সাধারণ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Abhishek Banerjee) হুঁশিয়ারি আমি হলে মাথায় গুলি করতাম। আর বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার (Sukanta Majumdar) বলেন, পশ্চিমবঙ্গকে ট্রিগার হ্যাপি পুলিশ উপহার দেবে অভিষেক। দু তরফের মন্তব্য নিয়ে তীব্র রাজনৈতিক বিতর্ক। এবার একযোগে সরকার ও বিরোধী দলকে আক্রমণে সিপিআইএম (CPIM) রাজ্য সম্পাদক (Md Salim) মহম্মদ সেলিমের। তিনি বলেন, নাদুসনুদুস টাকা খাওয়া নেতারা আসলে নিরাপত্তায় থাকতে চায়।

সেলিম বলেন, বিজেপি বা তৃণমূলের নেতা সে শুভেন্দু হোক আর অভিষেক হোক তারা নিরাপত্তা চায় ছত্রছায়া চায়। তিনি বলেন, অভিষেক নিজেও সুপ্রিম কোর্ট থেকে প্রোটেকশন নিয়েছে ইডি সিবিআইয়ের হাত থেকে বাঁচার জন্য। ফেঁসে গেলে হাইকোর্ট হোক, সুপ্রিম কোর্ট হোক, তাদের প্রোটেকশন চায়। নিজের পিসির মতো একটা ফিগার লাগে।

পড়ুন TMC সাধারণ সম্পাদক অভিষেক কী বলেছেন

আক্রমণাত্মক অভিষেক, বললেন ‘মাথায় গুলি করতাম’

বিরোধী দলনেতা ও বিজেপি বিধায়ক শুভেন্দুকে কটাক্ষ করে মহম্মদ সেলিম বলেন, ওর অমিত শাহের মতো একটা ফিগার লাগে যার কোলে বসে রাজনীতি করতে চায়।

পড়ুন বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার কী বলেছেন

অভিষেক পশ্চিমবঙ্গকে ‘ট্রিগার হ্যাপি পুলিশ’ উপহার দেবে: সুকান্ত

বিজেপির নবান্ন অভিযানের আগে সিপিআইএমের বর্ধমান শহরের আইন অমান্য আন্দোলন ছিল তীব্র সংঘাতময়। বর্ধমানে বাম সমর্থকরা বিশ্ব বাংলা স্ট্যাচু উপড়ে দেন। আক্রান্ত হয় পুলিশ। স্থানীয় তৃণমূল বিধায়কের একটি কার্যালয়ে হামলা হয়। মিছিল থেকে গ্রেফতার করা হয়েছিল দলটির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আভাস রায়চৌধুরী সহ ছাত্র নেতাদের। তাঁরা জেলে থেকে জামিনে বেরিয়ে এসেছেন।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)