তৃণমূলে বড় বিপর্যয়, দল ছাড়ছেন হাফ ডজন বিধায়ক

18187

বিরাট ধাক্কা। এত বড় ধাক্কা আসবে তার আন্দাজ দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) করেননি। তৃণমূল কংগ্রেস থেকে কমপক্ষে হাফ ডজন বিধায়ক বেরিয়ে যাচ্ছেন। আরও গোটা পাঁচেক যাবেন বলে তৈরি। পরিস্থিতি এমনই যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ক্ষুব্ধ তাঁরই ভাইপো তথা টিএমসি (TMC) সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেকের উপর। তৃণমূল কংগ্রেসের অম্দরে চলছে এমন গুঞ্জন।

পশ্চিমবঙ্গের তিনবারের শাসকদল টিএমসি এখন মেঘালয়ের বিরোধী দল। সে রাজ্যের বিরোধী দল ছিল কংগ্রেস। তাদের বিধায়কদের টেনে এনে মেঘালয়ে প্রধান বিরোধী দল হয় টিএসসি। পশ্চিমবঙ্গের বাইরে এই রাজ্যেই তৃণমূলের শক্তি দেখা যায় বিধানসভায়।

মেঘালয় তৃ়ণমূল শিবিরে ভাঙন প্রবল। সূত্রের খবর তৃণমূল ছাড়তে চলেছে পাঁচ-ছয় জন বিধায়ক। এই খবর শীর্ষ নেতৃত্বের কানে আসা মাত্রই তৎপরতা বেড়েছে। তড়িঘড়ি তলব করা হয়েছে মেঘালয়ের বিরোধী দলনেতা ও প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মুকুল সাংমাকে। তলব করা হয়েছে মেঘালয় তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি চার্লস পেইনগ্রোভকে।

সূত্রের খবর, শিটলাং পেল, জিমি ডি সাংমা, হিমালয় সাংলিং, মার্থন সংমা এবং জর্জ বি লিনদো তৃণমূল ছাড়তে চলেছেন। তাঁদের ইউনাইটেড ডেমোক্রেটিক পার্টিতে যোগদানের কথা চলছে। তৃণমূলের সূত্রে খবর, চলতি মাসেই বৈঠকের কথা শোনা যাচ্ছে। তবে বৈঠকের তারিখ নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানা যায়নি।

চলতি মাসেই মেঘালয় সফরে যাওয়ার কথা ছিল তৃণমূল কংগ্রেস সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের। কিন্তু মেঘালয় না গিয়ে একদিনের অসম সফরে যান তিনি। তৃণমূল সূত্রে খবর, বেশ কয়েকদিন ধরেই তৃণমূলের বেশ কিছু নেতা নিজেদের নিষ্ক্রিয় করে রেখেছেন। তা জানতে পেরেই মেঘালয়ের বদলে গুয়াহাটি যান অভিষেক। সেখান থেকেই বিজেপির বিরুদ্ধে বার্তা দিয়ে অভিষেক বলেন, আগামী বছর ত্রিপুরা এবং মেঘালয়ে সরকার গঠন করতে চলেছে তৃণমূল। এরই মধ্যে মেঘালয়ের পাঁচ বিধায়কের তৃণমূল ত্যাগের খবরে অস্বস্তি বাড়তে শুরু করল।

গত বছরেই মেঘালয়ে কংগ্রেসের ১৭ জন বিধায়কের মধ্যে ১২ জন তৃণমূলে যোগদান করেন। তখন থেকেই মেঘালয়ের বিরোধী আসনে রয়েছে তৃণমূল। কিন্তু নির্বাচনের আগে ৫ বিধায়কের দলবদল চরম অস্বস্তিতে ফেলতে চলেছে ঘাসফুল শিবিরকে।