School Service Commission: চাকরি যাবে ক’জনের? ১৩ হাজারের তালিকা নিয়ে ঝাড়াই বাছাই

48
west bengal SSC scam

বেনিয়মে নিয়োগের সংখ্যা কত? গতকাল স্কুল সার্ভিস কমিশন (School Service Commission) এবং সিবিআইয়ের কাছে তালিকা চেয়েছিলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। আদালতের নির্দেশের পরেই ত্রিপাক্ষিক বৈঠকে জমা পড়ল ২০১৬ সালের নবম ও দশম শ্রেণীর নিয়োগের তালিকা। সেখানেই ১৩ হাজার জনের বেআইনি নিয়োগের তথ্য মিলেছে৷

বৃহস্পতিবার কমিশনের দফতরেই হয়ে বৈঠক। ছিলেন কমিশনের আইনজীবী, মামলাকারীদের আইনজীবী এবং মধ্য শিক্ষা পর্ষদের সদস্যরা। সেখানেই বৈঠকে উপস্থিত সব পক্ষের হাতেই ২০১৬-য় নবম-দশমে নিয়োগের তালিকার প্রতিলিপি তুলে দেওয়া হয়। সেই তালিকায় রয়েছে ১৩ হাজার জনের নাম। মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সঙ্গে তালিকা মিলিয়ে রিপোর্ট তৈরি করা হবে৷ সেই রিপোর্ট আদালতের কাছে পেশ করা হবে।

উল্লেখ্য, গতকাল বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, বিচারপতি বলেন, ‘‘গত এপ্রিল মাস থেকে মামলা চলছে, প্রকৃত যোগ্য প্রার্থীরা এখনও চাকরি পাননি। তাঁদের দ্রুত চাকরির ব্যবস্থা করতে হবে তো।’’ বুধবার শুনানি চলাকালীন বিচারপতি বেআইনি নিয়োগের হিসেব চান স্কুল সার্ভিস কমিশন (এসএসসি) এবং কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআইয়ের কাছে।

এরপরেই সিবিআই ও স্কুল সার্ভিস কমিশনের কাছেই নবম এবং দশম শ্রেণির শিক্ষক নিয়োগে বেআইনি নিয়োগের তালিকা চেয়েছেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়।তিনি বলেন, বেআইনি ভাবে যাঁরা চাকরি পেয়েছেন, তাঁদের বরখাস্ত করা হবে। ২৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যেই এসএসসি এবং সিবিআইকে এ সংক্রান্ত রিপোর্ট দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি।

আদালতের নির্দেশের ২৪ ঘন্টার মধ্যেই তৎপরতা কমিশনের অন্দরে। আগামী দিনে কর্মরত ক’জনের চাকরি যায় সেটাও দেখার৷ অন্যদিকে, ওয়েটিং লিস্টে থাকা ক’জনকে চাকরি দেওয়ার কথা কমিশন ও সিবিআইয়ের তরফে দেওয়া হয়? সেটাই দেখার।