ঝুলে থাকা হাওড়া পুর নির্বাচনে ডিলিমিটেশন তরজা

16

পঞ্চায়েত নির্বাচনের সঙ্গে হোক হাওড়া পুরসভার (পুরনিগম) (Howrah Municupal Corportion) ভোট৷ এই গুঞ্জনের মধ্যেই সর্বদলীয় বৈঠকের পর নির্বাচনী তৎপরতা শুরু। জেলাশাসক মুক্তা আর্যর উপস্থিতিতে হাওড়া পুর এলাকায় ভোটার তালিকা সংশোধন ও ডিলিমিটেশন বা ওয়ার্ড পুনর্বিন্যাস নিয়ে এই সর্বদলীয় বৈঠক হয় সোমবার। সেখানে প্রশাসনের তরফে জানানো হয়, আইন মেনে ডিলিমিটেশন হয়েছে।

অন্যদিকে, বিরোধীদের দাবি হাওড়া ও বালি পুরসভায় ডিলিমিটেশন বা ওয়ার্ড পুনর্বিন্যাসও আইন মেনে হয়নি। কোন কাগজপত্র ছাড়াই কীভাবে ডিলিমিটেশন? প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর, আগেই হাওড়া ও বালি পুরসভায় ডিলিমিটেশন নিয়ে খসড়া তালিকা সব রাজনৈতিক দলের কাছেই পাঠানো হয়। এবিষয়ে বিরোধীদের কিছু দ্বিমত থাকলে পরে তা বদল করার বিষয়ে বৈঠক ডাকা হয়েছিল।

বিরোধীদের বক্তব্য, কোনও পুরবোর্ড ছাড়া কীভাবে ডিলিমিটেশন করা হচ্ছে? ভুয়ো ভোটারদের সংখ্যা এখনও ঝেড়ে না ফেলে কীভাবে নতুন করে নির্বাচনের প্রস্তুতি? যদিও শাসক শিবিরের বক্তব্য, ডিলিমিটেশন চূড়ান্ত এখন আপত্তি করে কোনও লাভ নেই৷ আইনগত পদ্ধতি ও রাজ্য সরকারের নির্দেশ মেনে পুরসভার ভোট সংক্রান্ত বিষয় পরবর্তী পদক্ষেপ করবে জেলা প্রশাসন।

জানা গিয়েছে, হাওড়া ও বালি দুটি পুরসভাকে আলাদা করা হবে। হাওড়া পুরসভার ওয়ার্ড সংখ্যা ৫০ থেকে ৬৬ করা হবে৷ মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের ঘোষণার একদিন পরেই প্রশাসনের তরফে নির্বাচন নিয়ে তৎপরতা। শীঘ্রই হাওড়ায় হবে নির্বাচন প্রশ্ন রাজনৈতিক মহলে৷

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)