Qatar WC: ‘মারহাবা’ চিৎকারে পারস্য উপসাগর তীরে ফুটবলের বিশ্বযুদ্ধ শুরু

22
World Cup

‘মারহাবা-মারহাবা’ (ধন্য ধন্য) চিৎকারে পারস্য উপসাগর তীরে ফুটবল বাণিজ্যের নতুন পর্ব লিখতে শুরু করল (Qatar) কাতার। রবিবার শুরু  (Qatar WC)বিশ্বকাপ ফুটবল। ৩২টি দেশের জাতীয় দলের বল দখলের লড়াই ঘিরে বিশ্ব সরগরম

নিজেদের তত রক্ষী নেই, তাই পাকিস্তানের সেনার মদতে কাতার সরকার নিরাপত্তার কড়া বলয়ে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান করছে।

জঙ্গি হামলার সতর্কতা রয়েছে। কাতারে হামলার বার্তা দিয়েছে ইসলামিক স্টেট জঙ্গি সংগঠন। তাদের সংকেত বার্তা ফাঁকা মাঠে গোল করো।

ইসলামিক স্টেটের প্রধান প্রতিপক্ষ তালিবান জঙ্গিরা। তাদের প্রত্যক্ষ সমর্থন করে কাতার সরকার। কাতারেই আছে তালিবান আন্তর্জাতিক দফতর। তারা আফগানিস্তানের ক্ষমতায় বসার আগেই কাতার থেকেই কূটনৈতিক বৈঠকগুলি করত।

কাতার গড়েছে নজির। আরব মুলুকের প্রথম দেশ হিসেবে বিশ্বকাপ ফুটবলের আয়োজক তারা। তেল বাণিজ্যের দৌলতে সৌদি আরব, কুয়েত, সংযুক্ত আরব আমিরশাহী, ইরান সহ আর কয়েকটি বিত্তশালী দেশ থাকলেও কাতার উঠে আসে এই তালিকায়।

উদ্বোধনী ম্যাচে অংশ নেবে আয়োজক দেশ কাতার ও  ইকুয়েডর। সেই অর্থে এশিয়া বনাম দক্ষিণ আমেরিকার লড়াই দিয়ে এবারের ফুটবলের বিশ্বযুদ্ধ শুরু হবে। কাতার জুড়ে গণউন্মাদনা।

FIFA জানাচ্ছে, বিশ্বকাপের মহারণে অংশ নেওয়া ৩২ দলের মধ্যে সবার শেষে কাতারে এসেছে ব্রাজিল দল।  শেষ দল হিসেবে শনিবার স্থানীয় সময় রাত ১১টার দিকে কাতারে এসে পৌঁছেছে তারা। আগেই আর্জেন্টিনা,জার্মানির মতো বাঘা বাঘা দেশগুলির জাতীয় ফুটবল দল হাজির হয়েছে।

এদিকে উদ্বোধনী ম্যাচ ঘিরে তীব্র বিতর্ক। মধ্যপ্রাচ্যের ব্রিটিশ সেন্টারের গবেষক তাহা বিস্ফোরক দাবি, জয়ের জন্য কাতারের ফুটবল ফেডারেশন ৭.৩৪ মিলিয়ন ঘুষ দিয়েছে ইকুয়েডরের কয়েকজন ফুটবলারকে। যদিও ইকুয়েডর এ বিষয়ে মন্তব্য করেনি।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)