Qatar WC: দেশ জ্বলছে হিজাব বিদ্রোহে, ‘মৃত্যুদণ্ড’ ভয়ে মাঠে বিদ্রোহ ভুলে জয়ী ইরান

বিশ্বকাপের মাঠে ভ্যানিশ ইরানি বিদ্রোহ। তবে গ্যালারিতে হলো প্রতিবাদ

14

সুজানা ইব্রাহিম মোহনা, দোহা: জয়ী ইরান (Iran), ফের এশিয়ার জয়। একইসাথে কাতার বিশ্বকাপের (Qatar WC) মাঠ থেকে হিজাব বিদ্রোহ (Hijab Protest) ইতি টানলেন ইরানি ফুটবলাররা। কারণ দেশে ফিরলেই কড়া শাস্তির মুখে তারা পড়তে চলেছেন বলেই জানা যাচ্ছে। শুক্রবার ওয়েলসের সাথে ম্যাচের আগে ইরানি জাতীয় দল তাদের জাতীয় সঙ্গীতে গলা মিলিয়েছে। অথচ এর আগে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে নামার আগে জাতীয় সঙ্গীতের সময় নীরব ছিল তারা। তবে গ্যালারিতে হয়েছে প্রতিবাদ।

ইরানের জাতীয় দল সরাসরি সমর্থন করছে নিজ দেশের হিজাব বিদ্রোহ। সরকারের দমন নীতির প্রতিবাদে ও হিজাব বিরোধী মহিলাদের সমর্থনে ইরানি ফুটবলারদের নীরব বিদ্রোহে দেশটির সরকার কেঁপে গেছিল। শুক্রবার সব বিলকুল বদলে গেল।

অন্যদিকে তেহরান সহ ইরানের সর্বত্র হিজাব বিদ্রোহ চলছেই। ব্যাপক ধরপাকড় ও গুলি চালিয়ে হিজাব বিদ্রোহীদের ছত্রভঙ্গ করছে ইরান সরকার। সরকারের তরফে বিদ্রোহীদের ‘দাঙ্গাকারী’ চিহ্নিত করে মৃত্যুদণ্ড শাস্তির পথ নিতে পারে এমনই ইঙ্গিত দিয়েছে ইরান সরকার।

ইরানি মজলিসে (সংসদ) হিজাব বিদ্রোহীদের (Hijab Protest) মৃত্যুদণ্ড শাস্তির পক্ষে সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোট। ২৯০ জন সদস্যের মধ্যে ২২৭ জন প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেন। কী হবে বিশ্বকাপ (Qatar WC) খেলা হিজাব বিদ্রোহী ইরানি (Iran) ফুটবলারদের ভবিষ্যৎ চলছে আলোচনা ও বিতর্ক। নভেম্বর মাসের শুরুতে ইরানের পার্লামেন্ট (মজলিস) সদস্যদের সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোট পড়েছে হিজাব বিদ্রোহীদের মৃত্যুদণ্ড শাস্তির প্রস্তাবে। এই প্রস্তাবে বলা হয়েছে, বিক্ষোভকারীদের বিচার করে মৃত্যুদণ্ড শাস্তির কথা।

ইরানের নীতি পুলিশের হেফাজতে কুর্দিস তরুণী মাসা আমিনির মৃত্যুকে ঘিরে হিজাব বিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে আছে ইরান। গুলিতে নিহত শতাধিক। বিক্ষোভ দমাতে কঠোর অবস্থান নিয়েছে ইরান সরকার। বিক্ষোভকারীদের মৃত্যুদণ্ড শাস্তি দেওয়া হবে বলেই জানা যাচ্ছে। কাতারের মাঠে হিজাব বিরোধী বিক্ষোভের সমর্থন করা ইরানি ফুটবলারদের কী হবে? তারাও নিজ দেশের সরকারের নজরে পডেছেন। শুক্রবার তারা বিদ্রোহ থামালেন। জিতলেনও।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)