ইস্টবেঙ্গলের জালে ধরা পড়েছে ব্রাজিলিয়ান অ্যাটাকিং সেন্ট্রাল ফরোয়ার্ড

533
Bergson Gustavo

জানুয়ারির ফিফা উইন্ডো খোলার অপেক্ষায় প্রহর গুণছে বিশ্বের সমস্ত ফুটবল ক্লাব দল। চলতি স্রোতে গা ভাসিয়েছে ইন্ডিয়ান সুপার লিগ খেলা টিম ইস্টবেঙ্গল এফসি (East Bengal)। লিগে হতাশাজনক পারফরম্যান্সের জেরে ভোল পাল্টাতে চাইছে লাল-হলুদ ব্রিগেডের থিঙ্ক ট্র‍্যাঙ্ক। এই লক্ষ্য পূরণের জন্য ইস্টবেঙ্গলের ফ্রিকুয়েন্সিতে ধরা পড়েছে ব্রাজিলিয়ান অ্যাটাকিং সেন্ট্রাল ফরোয়ার্ড বার্গসন গুস্তাভো।

মালেয়শিয়ার ক্লাব ফুটবল দল জোহর দারুল তাযীমে খেলা অ্যাটাকিং সেন্ট্রাল ফরোয়ার্ড বার্গসন গুস্তাভো সিলভেরা দা সিলভা ব্রাজিলের অনূর্ধ্ব -২০ দলের সদস্য ছিল। ৩১ বছরের বার্গসন গুস্তাভো দুই উইং বরাবর বল পায়ে দৌড়ে বেশ সাবলীল। ডান পা’টা দুর্ধর্ষ গুস্তাভোর।

লাল-হলুদ শিবিরে ক্লেইটন সিলভার ‘দেশওয়ালি ভাই’ গুস্তাভো আসলে ধারে এবং ভারে টিম ইস্টবেঙ্গল অনেকটাই এগিয়ে যাবে। নাওরেম মহেশের সঙ্গে গুস্তাভো জুটি বাধলে ক্লেইটন আরও বেশি করে বল সাপ্লাই পেতে পারে। ফিনিশার হিসেবে এখনও পর্যন্ত ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড সিলভার ফর্ম নিয়ে ভ্রু’রু কুঁচকানোর কারণ নেই।নিজের জায়গাতে একশো শতাংশ দেওয়ার ক্ষেত্রে ফুটবলার ক্লেইটন সিলভার ছটফটানি চোখে পড়ার মতো।

ষোলো কলা পূর্ণ হতে পারে অ্যাটাকিং সেন্ট্রাল ফরোয়ার্ড বার্গসন গুস্তাভো চলে আসলে।এটা সম্ভব হতে পারে তখনই কর্তারা যখন নিজেদের সেরাটা উজাড় করে দেবে ব্রাজিলিয়ান এই তারকা ফুটবলারকে মরিয়া হয়ে উঠলে।সমস্ত কিছুই এখন আলোচনার স্তরে রয়েছে।পাঁকা কথা কিছুই হয়নি।তবে লাল হলুদ ভক্তদের মধ্যে এখন থেকেই বেশ আদুরে হয়ে উঠেছেন সেলেকাও
বার্গসন গুস্তাভো।