Hair Care: ঘরে তৈরি প্যাক দিয়ে নিজের চুলের স্বাস্থ্য বজায় রাখুন

36
haire care

আমাদের চুল (Haire Care) তৈরি হয় কেরাটিন আর অ্যামাইনো অ্যাসিড দিয়ে – জানেন নিশ্চয়ই যে এগুলি প্রোটিন? অতিরিক্ত কেমিকাল, দূষণের প্রভাব, গরম বা রোদ্দুরে দীর্ঘক্ষণ থাকার ফলে প্রোটিন ভেঙে যায়। তখনই গোড়া থেকে দুর্বল হয়ে যায় চুল, তা হারায় উজ্জ্বলতা, ঝরে পড়তে থাকে। মাথায় চিরুনি ঠেকালেই গোছা গোছা চুল পড়তে থাকে।

আরও একটা গুরুত্বপূর্ণ কারণ হচ্ছে খাবারে প্রয়োজনীয় পুষ্টির অভাব। খাদ্যতালিকা যেন সুষম হয়, তা দেখতে হবে। রোজ ডাল খান, মাঝে মাঝে দই বা ছানা, অথবা এক-আধটা ডিম খেতে হবে। তরিতরকারি, বিশেষ করে সবুজ শাক সবজি খেতে হবে। ফল, বাদাম আর মাছ খেতে পারলেও খুব ভালো থাকবে আপনার চুল। সেই সঙ্গে প্রচুর জল খেতে ভুলবেন না যেন! অনেক সময়েই স্রেফ আর্দ্রতার অভাবেও চুল রুক্ষ হয়ে যায় এবং ভাঙতে আরম্ভ করে।

ডিম প্রোটিনে ভরপুর এবং আপনার চুলের স্বাস্থ্যরক্ষায় তার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা আছে। ডিমের কুসুম, নারকেল বা অলিভ তেল আর মধুর প্যাক তৈরি করে নিন। ডিমের আঁশটে গন্ধ তাড়াতে এই প্যাকে মেশাতে পারেন পছন্দের কোনও এসেনশিয়াল অয়েল। পুরো মাথায় ও স্ক্যাল্পে এই প্রলেপ লাগিয়ে রাখুন আধ ঘণ্টার জন্য — তার পর শ্যাম্পু করে কন্ডিশনার লাগিয়ে নিন। খুশকির সমস্যা থাকলে এর মধ্যে লেবুর রসও মেশানো যায়। সপ্তাহে একবার লাগাতে পারেন। তবে 15 দিনে একবার লাগালেও চলবে।

যারা ডিমের গন্ধ সহ্য করতে পারেন না, তাঁরা দই দিয়ে এই প্যাক বানিয়ে নিতে পারেন। নারকেলের দুধ হালকা একটু গরম করে নিয়ে পুরো চুলে মাখিয়ে নিন ভালো করে। তার পর গরম জলে ডুবিয়ে নিংড়ে নেওয়া তোয়ালে মাথায় জড়িয়ে রেখে দিন আধ ঘণ্টার জন্য। তার পর শ্যাম্পু করে কন্ডিশনার লাগিয়ে নিন।

তবে প্যাক তোলার জন্য বেশি ঘষাঘষি করবেন না চুলে। শাওয়ার খুলে জলের নিচে দাঁড়ান। প্যাক ধুয়ে বেরিয়ে গেলে শ্যাম্পু করে নিন। আলতো হাতে চুল মুছবেন। নিয়মিত প্রোটিন প্যাক ব্যবহার করলে চুলের ফ্রিজ বা রক্ষতাও ক্রমশ কমতে আরম্ভ করে।a

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)