Loneliness: একাকীত্ব কাটিয়ে ফিরুন সাধারন জীবনে, রইল একাধিক উপায়

13

বর্তমান যুগে মানুষরা নানা কাজের চাপে সব সময় ব্যস্ত থাকে। আর এই ব্যস্ত থাকার দরুন মানুষ ভুলে যাচ্ছে নিজেকে সময় দিতে কিংবা বলা যেতে পারে মানুষটির আসেপাশে থাকা আর পাঁচটা মানুষকে সময় দিতে না পারায় মানুষের জীবনে আগমন ঘটে একাকীত্বতার। কোন কোন ক্ষেত্রেই একাকীত্বতা(Loneliness) এমন পর্যায়ে পৌঁছে যায় যে, মানুষটির আশেপাশের সবকিছু থাকা সত্ত্বেও তার না কিছু করতে ভালো লাগে, না কিছু শুনতে ভালো লাগে আর না কিছু বলতে ভালো লাগে। নিস্তব্ধতাময় জীবন যেন তখন মানুষের জীবনে নিত্য সঙ্গী হয়ে ওঠে।

আর ঠিক এই সময়তেই মানুষের বেঁচে থাকার ইচ্ছেটা ধীরে ধীরে কমতে থাকে এর সাথে সাথেই কুকর্ম অর্থাৎ আত্মহত্যার ভাবনা পুরোপুরি ভাবে গ্রাস করতে থাকে। কিন্তু, যদি থাকে নিজের উদ্যম তাহলে সেই মানুষ নিজেই পারবে তার একাকিত্বতা দূর করতে। তাহলে জেনে নেওয়া যাক কি কি করলে কিছু সময়ের মধ্যেই কাটতে পারে মানুষের একাকীত্বতা। তা হল-

 ১) প্রথমেই এটা বলে রাখা ভালো, আপনার একাকিত্ব যদি আত্মহননের পথে নিয়ে যায়, তাহলে দ্রুত থেরাপিস্টের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। মনোবিদের পরামর্শ অনুযায়ী নিয়মিত কাউন্সিলিংয়ের মাধ্যমে দেখবেন আপনি আবারও বেঁচে থাকার আননদ ফিরে পাবেন।

 ২)দ্বিতীয়ত, আপনিই হয়ে ওঠুন আপনার সবচেয়ে প্রিয় সঙ্গী। নিজের সঙ্গেও প্রেম করুন। একা একা বেড়াতে যান। হতে পারে কোনো রেস্টুরেন্টে বসে কিছু খেলেন বা কোনো পছন্দের জিনিস নিজেকে উপহার দিলেন। সর্বপোরি নিজের সঙ্গে সময় কাটান। দেখবেন, অনেক ধোঁয়াশা পরিষ্কার হয়ে গেছে। হালকা লাগছে নিজেকে।

 ৩)মনের আরোগ্য পেতে প্রকৃতির মতো বড় ওষুধ আর নেই। আর তাই প্রকৃতির কাছে যান। সমুদ্র, পাহাড় বা ধারের কাছের কোনো পার্ক যেকোনো জায়গায় ঘুরে আসতে পারেন। এটি আপনাকে একাকিত্ব দূর করতে কাজ করবে।

 ৪)প্রকৃতি যেমন মানুষকে আরোগ্য করে, তেমনি সঙ্গীতও মানুষকে শান্তি দেয়, মানসিক চাপ কমাতে সাহায্য করে। তাই পছন্দের গান শুনুন বা শিথিল করে এমন সঙ্গীত শুনতে পারেন।

 ৫) পারলে ছোটবেলার বন্ধুদের সাথে যোগাযোগ করুন। সেই সব বন্ধুদের কাছে যান, যারা আসলেই আপনার জন্য সহযোগী, আপনার প্রাণের বন্ধু। প্রয়োজনে তাদের সাহায্য চান আপনাকে এই যন্ত্রণা থেকে বের করে আনতে।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)