TET Scam: ফোন বন্ধ, সিবিআই জেরার আগে গায়েব তৃণমূল বিধায়ক মানিক

38
Manik Bhattacharya

সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিয়েছে বুধবার পর্যন্ত গ্রেফতার করা যাবেনা তৃণমূল বিধায়ক (TMC) মানিক ভট্টাচার্যকে (Manik Bhattacharya) । এর পরেই গায়েব হয়ে গেলেন প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের প্রাক্তন সভাপতি। টেট দুর্নীতির (Tet Scam) মঙ্গলবার রাত ৮ টার মধ্যে তলব করা হয় তাঁকে।

নিজাম প্যালেসে গেলেন না মানিক। তিনি দিল্লিতে আছেন বলে জানা যাচ্ছে। মনে করা হচ্ছে বুধবার তিনি রক্ষাকবচ মেয়াদ বৃদ্ধির জন্য চেষ্টা করছেন। তেমনটা না হলে তিনি সিবিআই হেফাজতে যেতে পারেন বলেই মনে করা হচ্ছে।

প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের প্রাক্তন সভাপতি তথা তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক মানিক ভট্টাচার্যকে। মানিককে জিজ্ঞাসাবাদ করে সঠিক উত্তর না পেলে তাঁকে আজই হেফাজতে নিতে পারে (CBI) সিবিআই এমন আশঙ্কা তৃণমূলে।

প্রাথমিক শিক্ষক পদে নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় এর আগে একাধিক প্রশ্ন তুলেছিল আদালত৷ একাধিক নজিরবিহীন দুর্নীতি উঠে আসতেই সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট। একইসঙ্গে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি মানিক ভট্টাচার্যকে অপসারিত করে আদালত৷

কার নির্দেশে ওএমআর শিট নষ্ট? এর সঙ্গে কারা যুক্ত। ২০ লক্ষ পরীক্ষার্থীদের মধ্যে কাদের ওএমআর শিট নষ্ট করা হয়েছে? খতিয়ে দেখার জন্য সিবিআই তদন্তের নির্দেশ বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের

প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় পাহাড় প্রমাণ দুর্নীতির উদাহরণ উল্লেখ করে ইডি। চার্জশিটে রয়েছে মানিক ভট্টাচার্যের নাম। রক্ষাকবচ নিতে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন মানিক। কিন্তু তাতে কোনও ফায়দা হয়নি

উল্লেখ্য, প্রাথমিক শিক্ষক পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে চরম দুর্নীতির কথা একাধিক অভিযোগে উল্লেখ রয়েছে। সেখানে কোথাও লেখা রয়েছে টাকার বিনিময়ে নিয়োগ হয়েছে। আবার কোথাও লেখা সাদা খাতা জমা দিয়ে হয়েছে নিয়োগ। নিয়োগের ক্ষেত্রে প্রভাবশালী ব্যক্তিদের তালিকাকেও গুরুত্ব দেওয়া হয়ে বলেও অভিযোগ উঠেছিল। 

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)