Saturday, February 4, 2023

Mullah Akhunzada: পাক-বাহিনীর হামলায় মৃত্যু আখুনজাদার, স্বীকার করল তালিবান

- Advertisement -

অনলাইন ডেস্ক: ১৫ অগস্ট তালিবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করে৷ ক্ষমতায় আসার পর ঘোষণা করা হয়েছিল, হিবাতুল্লা আখুনজাদার নেতৃত্বে দেশের সরকার গঠন হবে। কিন্তু ক্ষমতা দখলের পরেও এখনও তাঁকে সেভাবে বিশেষ সামনে আসতে দেখা যায়নি।

- Advertisement -

শুধুমাত্র একবার একটি ভিডিও বার্তায় আখুনজাদাকে দেখা গিয়েছিল। তাই আখুনজাদা কোথায়, কি অবস্থায় আছেন তা নিয়ে একটা সন্দেহ ছিল। শেষ পর্যন্ত শনিবার সেই সন্দেহের অবসান ঘটল। তালিবানের পক্ষ জানানো হল, হিবাতুল্লা আখুনজাদা ২০২০ সালে এক আত্মঘাতী হামলায় প্রাণ হারিয়েছেন।

তালিবান নেতা আমির আল মুমিনিন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ২০২০ সালে পাকিস্তানের বাহিনীর হাতে মৃত্যু হয় আখুনজাদার। পাকবাহিনীর আত্মঘাতী হামলায় নিশানায় ভুল হওয়ার কারণেই আখুনজাদার মৃত্যু হয়েছিল। তবে আখুনজাদার পর তালিবান সরকারের নেতৃত্ব কে করবেন সে বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে আমির কিছু বলেননি। তিনি বলেন, বিষয়টি এখনও চিন্তাভাবনার স্তরে রয়েছে। সরকারের পরবর্তী প্রধানের নাম ঠিক হলে সংবাদমাধ্যমকে তা জানিয়ে দেওয়া হবে। একই সঙ্গে আমিন জানিয়েছেন, ভিডিয়োবার্তায় আখুনজাদার যে ছবি দেখা গিয়েছিল তা আসলে বহু বছরের পুরনো।

- Advertisement -

এর আগে নিউইয়র্ক পোস্টও জানিয়েছিল, সোশ্যাল মিডিয়ায় আখুনজাদার যে ছবি পোস্ট হয়েছে তা অনেক দিনের পুরনো। আফগানিস্তানে দখল নেওয়ার পর আখুনজাদার নাম প্রকাশ্যে এসেছিল। কিন্তু ক্ষমতা দখলের পর প্রায় আড়াই মাস হয়ে গিয়েছে, এখনও পর্যন্ত আখুনজাদাকে প্রকাশ্যে দেখা যায়নি। তাই তাঁর উপস্থিতি নিয়ে প্রথম থেকেই প্রশ্ন ছিল। শেষ পর্যন্ত সেই প্রশ্নের নিরসন করল তালিবান।

তালিবান নেতা স্পষ্ট জানালেন, পাকবাহিনীর হাতে এক বছর আগেই আখুনজাদার মৃত্যু হয়েছে। আখুনজাদা বরাবরই চরমপন্থী নেতা হিসেবে পরিচিত ছিলেন। বিশেষ করে মহিলাদের স্বাধীনতা একেবারেই না পসন্দ ছিল। পাশাপাশি আন্তর্জাতিক কোনও বিষয় সম্পর্কে আখুনজাদার কোন ধারনা ছিল না। তাই সরকারের প্রধান হিসেবে আখুনজাদা সফল হতে পারবেন কিনা তা নিয়েও প্রথম থেকেই সন্দেহ ছিল।

ক্ষমতা দখলের পর তালিবানের অন্তর্দ্বন্দ্ব ক্রমশই বাড়ছে। মূলত তালিবানের সঙ্গে খলিল হাক্কানী গোষ্ঠীর সংঘর্ষ চলছে। সরকারে নিজেদের প্রতিনিধিত্ব আরও বাড়াতে সক্রিয় দুই গোষ্ঠীই। এই কাজ করতে গিয়ে পরিস্থিতি এতটাই খারাপ হয়েছে হাক্কানি গোষ্ঠী উপ-প্রধানমন্ত্রী মোল্লা আবদুল ঘানি বরাদরকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। ওই ঘটনার পর বরাদর কাবুল ছেড়ে কান্দাহারে চলে গিয়েছিলেন। প্রায় একমাস পর সম্প্রতি তিনি কাবুলে ফিরেছেন। তবে তিনি তালিবান সরকারের নিরাপত্তা নিচ্ছেন না। কারণ সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক রয়েছে হাক্কানি গোষ্ঠীর দখলে। হাক্কানী গোষ্ঠীর নিরাপত্তা ফিরিয়ে দিয়েছেন বরাদর।