দুর্নীতির কারণে চাকরি হয়নি, শিক্ষামন্ত্রীকে জবাব হবু শিক্ষকদের

65
TET Protest

পাশ করলেই নিয়োগ দিতেই হবে এমনটা নাও হতে পারে৷ আন্দোলন করলেই চাকরি পাবেন না। যোগ্যদের চাকরি দেওয়া হবে৷ সোমবার শিক্ষামন্ত্রীর এই মন্তব্য হবু শিক্ষকদের মঞ্চে আলোড়ন ফেলে দিয়েছে। সরকার অযোগ্যদের নিয়োগ দিয়েছে। তা প্রমাণ হয়েছে। আগামী দিনে কয়েক হাজার জনের নিয়োগ বাতিল হবে৷ দাবি গান্ধীমূর্তির পাদদেশে আন্দোলনরত এসএলএসটি চাকরি প্রার্থীদের।

ধর্মতলায় ৫৯৭ ধরে আন্দোলন জারি রেখেছেন চাকরি প্রার্থীরা৷ তাঁদের কথায়, শহর কলকাতার বুকে একাধিক মঞ্চ আন্দোলন জারি রেখেছে৷ শিক্ষামন্ত্রী কাদের বিষয়ে একথা বলেছেন স্পষ্ট নয়। কিন্তু এটা ঠিক শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে দুর্নীতি হয়েছে৷ সেই দুর্নীতির কারণে বঞ্চিত হয়েছেন যোগ্য চাকরি প্রার্থীরা।

তাঁদের কথায়, নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষক পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে দুর্নীতি হয়েছে একথা আগেই আমরা দাবি করে এসেছি। ২০১৯ সালে প্রেস ক্লাবের সামনে আন্দোলনের সময়েই অঙ্কিতা অধিকারীর কথা তুলে ধরেছিলাম। সেটা কোর্ট প্রমাণিত হল ২০২২ সালে। আমরা আগেই আরটিআই করে তালিকা প্রকাশ করেছিলাম। এমনকি ২০১৯ সালে যে ৫ জনকে নিয়োগ করা হয়েছিল, তাদেরও নিয়োগ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল৷ একজনের চাকরি থেকে বাতিল করা হয়েছে।

ইতিমধ্যেই ইডি জানিয়েছে, নবম-দশমে ৯৫২ জন এবং একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণীর ৯৬০ জনের নিয়োগে বেনিয়ম হয়েছে৷ কমিশনের তরফে সেই সংখ্যা কম বলা হচ্ছে। কিন্তু সংখ্যা অল্প হলেও দুর্নীতি হয়েছে এটা তো ঠিক। আমরা আজ বলছি কয়েক হাজার জনের চাকরি বাতিল হবে৷ আগামী দিনে কোর্ট মারফত তা বাতিল হবে৷ এমনকি সেই সংখ্যা আগামী দিনে বাড়তে পারে৷

হবু শিক্ষকদের বক্তব্য, তদন্তকারী সংখ্যা ওএমআর শিট এবং মৌখিকের হার্ড কপি মিলিয়ে দেখুক। ওই একই তথ্য কমিশনের দফতরে কী রয়েছে মিলিয়ে দেখুক তাহলেই প্রমাণিত হয়ে যাবে৷ তবে আমরা নিয়োগ না পাওয়া অবধি এই আন্দোলন চালিয়ে যাবো।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)