SSC SCAM: দুর্নীতির মূলে পার্থ, জামিনের বিরোধিতা সিবিআইয়ের

18

জুলাই মাস থেকে জেল হেফাজতে রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chatterjee)। সোমবার ফের সশরীরে হাজিরা দিলেন তৃণমূলের প্রাক্তন মহাসচিব। “মানবাধিকার লঙ্ঘন করে পার্থকে আটকে রাখা হয়েছে,যে কোনও প্রকারে জামিন দেওয়া হোক” আদালতে এরকমটাই আবেদন করেন আইনজীবী সেলিম রহমান। কোনভাবেই যাতে পার্থর জামিন মঞ্জুর না হয় ” দুর্নীতিতে(SSC SCAM) পার্থর মুখ্য ভূমিকা রয়েছে” বলে পাল্টা পাবি করে সিবিআইয়ের আইনজীবী । 

এদিন আদালতকে পার্থর আইনজীবী বলেন, যে কোনও কঠিন শর্তে জামিন দেওয়া হোক পার্থকে। দরকার পড়লে মক্কেলের পাসপোর্ট জমা রাখা হোক। মনিটর করা হোক। প্রমাণ হওয়ার আগে তাঁকে যেন চোর না বলা হয়। এটা মানবাধিকারের বিষয়। তাঁকে তো চোর প্রমাণ করা হচ্ছে।” এমনকি পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের অন্তর্বর্তীকালীন জামিনের আবেদনও জানান তিনি। 

কোনভাবেই যেতে পার্থ চট্টোপাধ্যায় জামিন না পান তাই পাল্টা সিবিআইয়ের তরফে দাবি করা হয়, “পরিকল্পনামাফিক অপরাধ করা হয়েছে। অভিযুক্তদের ভূমিকা দেখে জামিনের বিরোধীতা করছে সিবিআই৷ তদন্ত এখনও চলছে, আর মনে রাখতে হবে এটা, দু’পাঁচ জনের মামলা নয়৷ প্রার্থীর সংখ্যা অনেক, এখনও আরও অনেক গ্রেফতারি বাকি৷ কিছু প্রমাণ এখনও জোগাড় করা বাকি৷” এমনকি খুব দ্রুত আরও অনেকে গ্রেফতার হতে পারে বলেও আদালতে দাবি করেছেন সিবিআইয়ের আইনজীবী। 

এমনকি গোটা দুর্নীতি প্রক্রিয়ায় পার্থর প্রধান ভূমিকা রয়েছে বলেও দাবি করে সিবিআই। আদালতের তরফ থেকে সিবিআইকে প্রশ্ন করা হয় এই মামলার তদন্তের জন্য সিবিআই এর এখনও কত দিনের প্রয়োজন রয়েছে।আদালতের প্রশ্নের উত্তরে সিবিআই জানিয়েছে গোটা তদন্ত প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে এখনও মাস ছয়েক লাগবেই। 

নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় এদিন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে হাজিরা দেন শান্তিপ্রসাদ সিনহা, কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায় ও সুবীরেশ ভট্টাচার্য সহ অন্যান্য অভিযুক্তরাও। এদিন সাংবাদিকদের প্রশ্নে মেজাজ হারান পার্থ। সাংবাদিকদের প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে কোন উত্তর দেননি প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী বরং একপ্রকার বিরক্ত হয়ে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন ‘চুপ করে থাকুন’। 

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)