Kolkata: বামপন্থী কমলেশ্বরকে ছাড়ল পুলিশ, কুণাল বললেন জাগো বাংলা ভেঙেছিল ভুলিনি

124
Bikash Ranjan Bhattacharya

উৎসবের (Durga Puja) আবহে কলকাতায় (Kolkata) রাজনৈতিক উত্তেজনা চলছে। হিন্দু মহাসভার ম়ন্ডপে অসুর রূপে মহাত্মা গান্ধী বিতর্ক কাটার আগেই বামপন্থী বই বিপনী কেন্দ্রে হামলা ও তার প্রতিবাদে CPIM সাংসদ (Bikash Ranjan Bhattacharya) বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য, পরিচালক কমলেশ্বর মু়খার্জি (Kamaleswar Mukherjee) সহ ৯ জনকে আটকের ঘটনায় রাজ্য আলোড়িত।

রাসবিহারী মোড় থেকে সোমবার পুলিশ আটক করে বিকাশ,কমলেশ্বর সহ ৯ বাম নেতাকে। এর পরেই তীব্র ধিক্কার শুরু হয়। প্রবল চাপের মুখে কলকাতা পুুলিশ জানায়, উৎসবের মাঝে জমায়েত চলবে না। সেই নিয়মে তাঁদের আটক করা হয়। তবে পরিচালক কমলেশ্বর মু়খার্জিকে পরে লালবাজার থেকে ছেড়ে দেয় পুলিশ।

কমলেশ্বর মুখার্জিকে আটকের ঘটনায় চলচ্চিত্র মহলেও তীব্র আলোড়ন ছড়ায়। একের পর এক শিল্পী পরিচলক ক্ষোভ উগরে দেন তৃ়নমূল কংগ্রেস সরকারের বিরুদ্ধে। পরিচালক সৃজিত মুখার্জি সরাসরি রাজ্য সরকারকেই আক্রমণ করে টুইটে লিখেছেন ‘বইকে এত ভয়’। সৃজিতের এই টুইট যেন ক্ষোভের আগুনে ঘি ছড়িয়েছে। তীব্র বিতর্কে জড়িয়েছে তৃ়ণমূল কংগ্রেস। দলীয় মুখপাত্র কুণাল ঘোষের দাবি, জাগো বাংলা স্টল ভাঙা হয়েছিল সে কথা ভুলিনি।

অন্যদিকে রাজনৈতিক বিতর্ক তুঙ্গে। কারণ রাসবিহারীর ওই বমপন্থী বই বিপনী কেন্দ্র থেকে পুলিশ আটক করে সিপিআইএম সাংসদ বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যকে। তাঁর সঙ্গেই আটক করে কমলেশ্বর মুখার্জি সহ মোট ৯ জনকে প্রিজন ভ্যানে তুলে নিয়ে যাওয়ার ছবি রাজ্য জুড়ে তীব্র আলোড়ন ফেলে দেয়। বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য রাজ্যসভার সাংসদ। ফলে তাঁর আটকের সংবাদে দিল্লিতেও রাজনৈতিক হাওয়া গরম করেছে।

অভিযোগ রবিবার রাসবিহারী মোড়ের কাছে বামপন্থী বই বিপনী কেন্দ্র ভেঙে দেয় তৃ়ণমূল কংগ্রেস সমর্থকরা। সোমবার সেখানেই ফের বই বিক্রি শুরু করেন সিপিআইএম সাংসদ বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য। পুলিশ এসে সবাইকে জমায়েত করতে নিষেধ করতেই শুরু হয় বাকবিতণ্ডা। এক পর্যায়ে সাংসদ ও আইনজীবী বিকাশরঞ্জনকে আটকের ঘটনায় বাম সমর্থকরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। ঘটনাস্খলে এসে পরিস্থিতি সামাল দেন সিপিআইএম রাজ্য সম্পাদক মহম্মদ সেলিম।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)