দুর্গাপুজোর মিছিলের আগে হবু শিক্ষকদের অভিযোগ ‘জীবন নিয়ে খেলা চলছে’

43

বৃহস্পতিবার দুপুরে কলকাতায় দুর্গাপূজোর উদযাপন নিয়ে বিরাট মিছিল করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রেডরোডে সরকারের তরফে বিরাট অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানস্থল থেকে কিছু দূরেই এখনও চাকরির অপেক্ষায় দিন কাটাতে হচ্ছে চাকরি প্রার্থীদের। বারবার মুখ্যমন্ত্রীর মুখে নিয়োগের কথা বলে হলেও বাস্তবের মাটিতে তা ফলপ্রসূ হয়নি। হবু শিক্ষকদের অভিযোগ, জীবন নিয়ে খেলা চলছে (TET Scam)।

হবু শিক্ষকরা বলছেন, প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রীকে নিয়ে নিয়োগ বিষয়ে আশ্বস্ত করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই শিক্ষামন্ত্রী এখন জেল হেফাজতে। এদিকে আন্দোলন ৫৩৫ দিন পার করল। এরই মধ্যে তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করেন চাকরি প্রার্থীরা। কথা বলেন, বর্তমান শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর সঙ্গে। তবুও নিয়োগ নিয়ে সরকারের কাছ থেকে ইতিবাচক কোনও সাড়া মেলেনি। 

পশ্চিমবঙ্গ স্কুল সার্ভিস কমিশনের দুর্নীতির কারণে চাকরি থেকে বঞ্চিত নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর হবু শিক্ষকরা গান্ধীমূর্তির পাদদেশে ধর্না দিচ্ছেন। অভিযোগ, ৫৩৫ দিন অতিবাহিত হলেও তাদের প্রতি মানবিকতা দেখায়নি সরকার।

চাকরি প্রার্থীদের বক্তব্য, ২০১৬ সালের প্রথম এসএলএসটি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে মেধাতালিকা ভুক্ত অথচ স্কুল সার্ভিস কমিশনের একাধিক ষড়যন্ত্র এবং দুর্নীতির শিকার হবু শিক্ষকরা। হাইকোর্টে শিক্ষক নিয়োগের মামলায় একাধিক দুর্নীতি প্রকাশ্যে আসছে। যারা দুর্নীতির কারণে বঞ্চিত হয়েছেন তাদের সমস্যা সমাধানের কোনো রকম পথ বের করার জন্য স্কুল সার্ভিস কমিশন, সরকার, হাইকোর্ট কোন পক্ষের সদিচ্ছা দেখা যাচ্ছে না।

যুব ছাত্র অধিকার মঞ্চের স্টেট কো-অর্ডিনেটর সুদীপ মন্ডল জানিয়েছেন, বঞ্চিত শিক্ষক- শিক্ষিকা পদপ্রার্থীদের ধর্ণার ৫৩৫ দিন অতিক্রান্ত হয়ে গিয়েছে। বুকভরা যন্ত্রণা আর চোখের জল নিয়ে তারা গান্ধীমূর্তির পাদদেশে দিনের পর দিন ধর্ণায় বসে রয়েছেন। এবার অন্তত সমস্যার সমাধান করতে মহামান্য হাইকোর্ট এবং সরকার একমত হয়ে মানবিকতার সাথে নবম – দ্বাদশের মেধাতালিকা ভুক্ত অথচ চাকরিতে নিয়োগ না পাওয়া সকল শিক্ষক-শিক্ষিকা পদপ্রার্থীদের অতি দ্রুত চাকরিতে নিয়োগ করুন। আমাদের জীবন থেকে বিগত মূল্যবান ছয়টি বছর চলে গিয়েছে। বঞ্চিত চাকরি প্রার্থীদের অধিকাংশই সর্বস্বান্ত হয়ে পড়েছে। এদের ন্যায্য অধিকার অতি দ্রুত ফিরিয়ে দেওয়া হোক।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)