Abhijit Ganguly: অভিজিত গাঙ্গুলীর বেফাঁস মন্তব্যে বিব্রত বিজেপি দিচ্ছে কড়া শিক্ষা

চাকরি ছেড়েই স্বঘোষিত বিজেপি নেতা হয়েছেন প্রাক্তন বিচারপতি (Abhijit Ganguly) অভিজিত গাঙ্গুলী, তবে বিজেপির নিয়মাবলী, সাংগঠনিক রীতিনীতি এখনও কণ্ঠস্থ হয়নি। শুরুতেই তিনি নারদ দুর্নীতি মামলা…

Abhijit Ganguy

চাকরি ছেড়েই স্বঘোষিত বিজেপি নেতা হয়েছেন প্রাক্তন বিচারপতি (Abhijit Ganguly) অভিজিত গাঙ্গুলী, তবে বিজেপির নিয়মাবলী, সাংগঠনিক রীতিনীতি এখনও কণ্ঠস্থ হয়নি। শুরুতেই তিনি নারদ দুর্নীতি মামলা নিয়ে বেফাঁস মন্তব্য করে বিজেপিকে বেকায়দায় ফেলেছেন। জানা যাচ্ছে, অভিজিত গাঙ্গুলীর সাংবাদিক সম্মেলনে ‘আলটপকা’ মন্তব্যে ক্ষুব্ধ দলটির বহু নেতা। দলের হয়ে ঘাম ঝরানো নেতাদের একাংশ বলছেন বেশি বেশি পাত্তা দেওয়া হচ্ছে। ওকে আগে দলের যোগ্য করা হোক।

gangopadhyay1

কী সেই যোগ্যতা? বিজেপির সাংগঠনিক নিয়ম নিয়ে যারা ওয়াকিবহাল তারা বলছেন, যেহেতু লোকসভা নির্বাচন তাই প্রথমেই সর্বভারতীয় লক্ষ্য নিয়ে অভিজিতবাবুকে হিন্দি-হিন্দু-হিন্দুস্তান তত্ত্ব শিখতে হবে। এর জন্য যে ধরণের সাংগঠনিক পাঠ্যসূচী আছে তার আদ্যপান্ত মুখস্থ করতে হবে। এর পাশাপাশি পড়তে হবে দলের সাংগঠনিক ধাপ। এই দুটি বিষয়ে তাঁকে অনবরত মৌখিক পরীক্ষা দিতে হবে। কিছুক্ষেত্রে লিখিত পরীক্ষাও হবে। এর জন্য অভিজিত গাঙ্গুলীকে দু তিন জন সংগঠন বিশেষজ্ঞ সাহায্য করবেন।

জানা যাচ্ছে, মন দিয়ে পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছেন আইনের তুখোড়র ছাত্র। তাঁকে বঙ্গ বিজেপির নেতৃত্ব যে প্রশ্নমালা পাঠিয়েছেন তাতে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ নোট দেওয়া হয়েছে আপাতত আক্রমণাত্মক মন্তব্য করা এড়িয়ে যেতে হবে। কারণ, অভিজিত গাঙ্গুলী সাংবাদিক সম্মেলনে লাগাতার তৃণমূল সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘তালপাতার সেপাই’ বলেছেন। বিজেপি নেতৃত্ব মনে করছেন, এটি চমকপ্রদ তবে মিনিটে মিনিটে এমন শব্দ ব্যবহার করে তিনি অভিষেককে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন। কলকাতার বিজেপিরই একাংশের ক্ষোভ, অভিজিত গাঙ্গুলীর লক্ষ্য যেন ব্যক্তিগত বদলা নেওয়া। তিনি বিজেপি দলের প্রতি তেমন সহানুভূতিশীল নন। বরাবর বাম ঘনিষ্ঠ অভিজিত গাঙ্গুলীকে শিক্ষা দিতে হবে বলে দাবি উঠেছে দলেরই জেলাস্তর থেকে।

Bjp

বিজেপির অন্দরমহলে চর্চিত, অভিজিত গাঙ্গুলীকে যতটা সম্ভব দ্রুত সবকিছু শিখতে হবে। তিনি মাঠে ঘাটের মানুষ নন তাই প্রচারে শ্লেষাত্মক মন্তব্য হজম করাও শিখতে হবে। সাংবাদিক সম্মেলনে চতুর প্রশ্নের উত্তর এড়ানোর কৌশল রপ্ত করতে হবে। জানা যাচ্ছে, বিজেপির কড়া শিক্ষা গ্রহণ করতে আদা-জল খেয়ে নেমেছেন অভিজিত গাঙ্গুলী।