১০০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে উড়বে অন্তর্দেশীয় বিমান, সিদ্ধান্ত বিমান মন্ত্রকের

180
Domestic aircraft india

নিউজ ডেস্ক, নয়াদিল্লি: করোনাকালে বিমানযাত্রার ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ শিথিলতা আনল কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রক। মন্ত্রক সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এবার ১০০ যাত্রী নিয়ে উড়তে পারবে অন্তর্দেশীয় বিমান। চলতি মাসের ১৮ তারিখ অর্থাৎ সোমবার থেকেই এই নতুন নিয়ম চালু হচ্ছে। অর্থাৎ বিমানের যাত্রী সংখ্যার উপর আর কোনও বিধি-নিষেধ জারি থাকছে না। তবে এই নিয়ম শুধুমাত্র অন্তর্দেশীয় বিমান পরিবহণের ক্ষেত্রে কার্যকর হবে। আন্তর্জাতিক বিমানে এই নিয়ম কার্যকর হচ্ছে না।

করোনার কারণে দেড় বছর ধরে অন্তর্দেশীয় বিমানের যাত্রী সংখ্যার উপর একাধিকবার নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল। করোনা ঠেকাতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সরকার। করোনার কারণে ২০২০-র মার্চ থেকে তিন-চার মাসের জন্য বিমান চলাচল ছিল সম্পূর্ণ বন্ধ। তারপর বিমান চলাচল শুরু হলেও যাত্রী সংখ্যা সীমিত রাখা হয়েছিল। কিন্তু এই মুহূর্তে দেশের করোনা পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। পাশাপাশি জোর গতিতে চলছে টিকাকরণ। তাই কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রক যাত্রী সংখ্যার ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ শিথিলতা আনল বলেই মনে করা হচ্ছে।

যদিও এই শিথিলতা দেখানো শুরু হয়েছিল ২০২০-র ডিসেম্বর থেকেই। সেসময় বলা হয়েছিল, ৮০ যাত্রী নিয়ে অন্তর্দেশীয় বিমান চলাচল করতে পারবে। কিন্তু চলতি বছরের জুন মাস নাগাদ দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ায় ফের অন্তর্দেশীয় বিমানের যাত্রী সংখ্যা কমিয়ে ৫০ শতাংশ করা হয়েছিল। তবে ২৫ জুলাই যাত্রীসংখ্যা বাড়িয়ে করা হয় ৬৫ শতাংশ। এরপর ১২ অগাস্ট একদফা যাত্রীসংখ্যা বাড়িয়ে করা হয় ৭২.৫ শতাংশ। দেশে করোনা পরিস্থিতি যত বেশি নিয়ন্ত্রণে এসেছে তত বেড়েছে যাত্রীসংখ্যা। তাই সেপ্টেম্বরে অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রক ফের একদফা যাত্রীসংখ্যা ৭২.৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৮৫ শতাংশ করেছিল। এবার সেটাই ১০০ শতাংশ করা হল।

যদিও মন্ত্রক এটাও স্পষ্ট জানিয়েছে যে, যাত্রী সংখ্যা বাড়লেও বিমানবন্দর ও উড়ান সংস্থাগুলিকে কোভিড বিধি পুরোপুরি মেনে চলতে হবে। কোনভাবেই যাতে সংক্রমণ না ছড়ায় তার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নিতে হবে।

যাত্রী সংখ্যা বাড়লেও এদিন মন্ত্রক আরও একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সেই সিদ্ধান্তের বলা হয়েছে, বিমান ভাড়ার সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন সীমায় টিকিট কাটার মেয়াদ ৩০ দিন থেকে কমে ১৫ দিন পর্যন্ত কার্যকর থাকবে। অর্থাৎ এখন থেকে বিমান যাত্রার দিন এবং টিকিট কাটার দিনের মধ্যে ব্যবধান হতে হবে ১৫ দিন বা তার কম। তবেই কেন্দ্রের নির্ধারিত মূল্যে কোনও যাত্রী বিমান যাত্রা করতে পারবেন। অন্যথায় যাত্রীদের বিমান সংস্থার চাহিদামত ভাড়া দিতে হবে। যাত্রীদের আশঙ্কা, এর ফলে বিমান ভাড়া কিছুটা বাড়বে। কারণ সব সময় ১৫ দিন আগে বিমান যাত্রার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব হয় না। তাই ১৫ দিনের এই সময়সীমা বেশ কম।