Dilip Ghosh: মিষ্টি না খাইয়ে রাজ্যপালকে সঙ্গে নিয়ে বাংলার পরিবর্তন করার নিদান দিলীপের

20
dilip ghosh

মঙ্গলবারই সস্ত্রীক রাজ্যে এসেছেন পশ্চিমবঙ্গের নতুন স্থায়ী রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস‌। আজ পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল পদে শপথ নেবেন তিনি। গতকাল রাজ্যপাল বাংলায় পা দেওয়া মাত্রই তাকে মিষ্টি পাঠিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই প্রসঙ্গেই আজ সকালে প্রাতঃভ্রমণে গিয়ে বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ(Dilip Ghosh) বলেন,’মিষ্টি খাইয়ে কোন লাভ নেই। বরং তাঁকে সঙ্গে নিয়ে বাংলার পরিবর্তন করুক মুখ্যমন্ত্রী। এতে রাজ্যবাসীর ভালো হবে।’

এটাই প্রথম বার নয়, এর আগেও বাংলা সফরে এসেছিলেন সিভি আনন্দ বোস। গতকাল এসেছেন বাংলার নতুন স্থায়ী রাজ্যপাল পদের দায়িত্ব নিতে। কিন্তু তার প্রথম বাংলা সফর ছিল বিধানসভা নির্বাচনের পরে গত বছর বিজেপির অভিযোগের ভিদিতে নির্বাচন পরবর্তী হিংসার তদন্তের জন্য।

গত বছর ভোট পরবর্তী হিংসার ঘটনা ঘটিয়ে দেখতে কেন্দ্রীয় তথ্যা ও সন্ধান দল এসে উপস্থিত হয়েছিল রাজ্যে সেই দলেই ছিলেন কেরল ব্যাচের প্রাক্তন আইএএস অফিসার আনন্দ বোস। ওই সময় খুব কড়া ভাষায় রাজ্যের শাসকদলের ধিক্কারজনক কাজে তীব্র সমালোচনা করেছিলেন তিনি এমন কি সেই সংক্রান্ত রিপোর্ট জমা দিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কাছে।

সেই প্রাক্তন আইএস অফিসার আনন্দ বোস বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী রাজ্যপাল হিসেবে শপথ গ্রহণ করতে চলেছেন। যেভাবে তিনি ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে তৃণমূল সরকারকে কড়া ভাষায় সমালোচনা করেছিলেন। এমনকি পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল পদে তার নাম ঘোষণার পর তিনি বলেছিলেন,’ রাজ্য সরকার যাতে সাংবিধানিক গণ্ডির মধ্যে থেকে কাজ করে সেই দিকে দৃষ্টি দেবেন তিনি।রাজ্য সরকার সাংবিধানিক গণ্ডির মধ্যে থাকলে তিনিও সহযোগিতা করবেন।

তিনি আরো বলেছিলেন তিনি রাজনৈতিক নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে নন বরং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে কাজ করতে যাচ্ছেন।’ ফলে পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক ক্ষেত্রে তার কতটা ভূমিকা থাকবে বা বর্তমানের শাসক দল সম্পর্কে তার ধ্যান-ধারণা ও দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে প্রশ্ন উঠছে বিভিন্ন মহলে।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)