Attack On ED: ডিজি রাজীব কুমারের নেটওয়ার্ক তৃণমূল নেতা শাহজাহানকে পেল?

গত বেশ কয়েকদিন ধরে উত্তপ্ত সন্দেশখালি। এই নিয়ে এবার মুখ খুললেন রাজ্য পুলিশের ডিজি রাজীব কুমার৷ পলাতক তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহান ইস্যুতে কড়া বার্তা দিয়েছেন.…

গত বেশ কয়েকদিন ধরে উত্তপ্ত সন্দেশখালি। এই নিয়ে এবার মুখ খুললেন রাজ্য পুলিশের ডিজি রাজীব কুমার৷ পলাতক তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহান ইস্যুতে কড়া বার্তা দিয়েছেন. ডিজি রাজীব কুমার। সন্দেশখালিতে তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহানের বাড়িতে অভিযানে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছিলেন ইডি’র আধিকারিকরা।

সেদিন ইডি’র আধিকারিকদের পাশাপাশি তাঁদের সঙ্গে থাকা কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের উপরেও চড়াও হন স্থানীয়রা। রীতিমতো রক্তারক্তি কাণ্ড ঘটে বেতাজ বাদশা শাহজাহানের বাড়ির সামনে৷ এরপরই তীব্র সমালোচনার মুখে পড়তে হয় রাজ্যের পুলিশ প্রশাসনকে৷ এমনকী কড়া বার্তা দিয়ে শেখ শাহজাহানকে গ্রেফতারের নির্দেশ দেন খোদ রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস৷ যদিও ঘটনার তিনদিন কেটে গেলেও এখনও খোঁজ নেই তৃণমূল নেতার।

   

এরপর সোমবার এবিষয়ে মুখ খুললেন খোদ রাজ্য পুলিশের ডিজি রাজীব কুমার। এদিন গঙ্গাসাগর থেকে রাজীব বলেন, “যারাই আইন হাতে তুলে নিয়েছে বা আইন ভঙ্গ করেছে, তাদের বিরুদ্ধে আমরা কঠোর ব্যবস্থা নেব।”

সন্দেশখালিতে শেখ শাহজাহানের বাড়িতে তল্লাশি ও অভিযানের দিন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) এবং কেন্দ্রীয় বাহিনীর উপর চড়াও হয়েছিল বেশ কয়েকজন। এবার সেই ঘটনায় রাজ্য পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে প্রেস বিবৃতি জারি করল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট।

অভিযোগ সন্দেশখালিতে গোটা ঘটনায় যেভাবে সরকারি কর্মীদের কাজে বাধা দেওয়া হয়েছিল এবং তারা পুলিশকে জানানো সত্ত্বেও রাজ্য পুলিশ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির যে সকল ধারায় অভিযোগ করেছে এই ধারাগুলি অত্যন্ত লঘু বলে দাবি ইডি’র।এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের আরও দাবি, রাজ্য পুলিশের তরফ থেকে যে সকল ধারাগুলি অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দেওয়া হয়েছে সেই সকল ধারাগুলি জামিন যোগ্য।

কিন্তু বাস্তবে যে সকল ঘটনাগুলি ঘটেছে তাতে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা রুজু করার কথা ছিল রাজ্য পুলিশের। এছাড়াও ইডি’র তরফ থেকে জানানো হয়েছে, রাজ্য পুলিশের তরফে যে এফআইআর করা হয়েছে তার কোনও নথিও তাদের দেওয়া হয়নি। পাশাপাশি, পুলিশ সুপারকে দু’বার জানানো সত্ত্বেও পুলিশ বনগাঁ এবং সন্দেশখালি দুই জায়গাতেই নিষ্ক্রিয় ছিল ৷