হিন্দুধর্মের অবমাননা: ট্যুইটারে ভাইরাল #BoycottMyntra

233

নিউজ ডেস্ক: বিজ্ঞাপনে হিন্দুধর্মের অবমাননা করায় নেটিজেনদের কোপের মুখে অনলাইন শপিং প্ল্যাটফর্ম ‘মিন্ট্রা’ (Myntra)। “হিন্দু বিরোধী” বিজ্ঞাপন ভাইরাল হওয়ার পর হ্যাশট্যাগ বয়কট মিন্ট্রা সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রেন্ডিং শুরু করে। ওই বিতর্কিত বিজ্ঞাপনটি ছিল মহাকাব্য মহাভারতের একটি দৃশ্যের উপর ভিত্তি করে। কৃষ্ণ “দ্রৌপদী বস্ত্রহরণ” এর সময় মিন্ট্রা অ্যাপে ‘অতিরিক্ত দীর্ঘ’ শাড়ির জন্য অনলাইন কেনাকাটা করছেন।

আরও পড়ুন তালিবান উৎখাতে আফগান নাগরিকদের ভরসা ‘রিয়েল হিরো’ আমরুল্লাহ সালেহ

@Hindutvaoutloud নামের একটি ইনস্টাগ্রাম পেজ থেকে এই ছবিটি শেয়ার করা হয়। তারপর থেকেই হিন্দুধর্মকে অবজ্ঞা করে বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মকে বয়কট করা শুরু করে অনেকে। একটি বিজ্ঞাপনভিত্তিক মিম সোশ্যাল মিডিয়াকে এত খারাপভাবে প্রভাবিত করেছে, যে কয়েকঘন্টার মধ্যেই ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মটিকে বন্ধ করার দাবি তুলেছে কয়েক হাজার নেটিজেন।

অনেকেই বিজ্ঞাপিত গ্রাফিকটিকে তাদের ধর্মের প্রতি অসম্মানজনক বলে অভিহিত করেছেন। একজন ব্যবহারকারী লিখেছেন, “আপনার কি অন্য ধর্মের শ্রদ্ধেয় দেবতাদের ছবি ব্যবহার করে একই ধরনের প্রচার করার সাহস আছে? যদি তা না হয় তবে ক্ষমা চান। আপনার সমস্ত প্ল্যাটফর্ম থেকে এই বিজ্ঞাপনটিকে সরিয়ে দিন।” আরেক সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী লিখেছেন, “এই অপমানজনক বিজ্ঞাপনের জন্য মিন্ট্রা আনইনস্টল করলাম l ফ্লিপকার্ট সহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের কাছে এই অবমাননাকর বিজ্ঞাপনের ব্যপারে তাদের অবস্থান ব্যাখ্যা করার জন্য সময় দিলাম। নয়তো সেগুলোও আনইনস্টল হবে।”

আরও পড়ুন এবারে শীতে বড় পর্দায় আসতে চলেছে দেব-রুক্মিণীর ‘কিশমিশ’, প্রকাশ্যে ছবির অ্যানিমেটেড টিজার

২০১৬ সালেও বিতর্ক সৃষ্টি করেছিল ঠিক একই ধরনের আরেকটি বিজ্ঞাপন। সেসময় লোকেরা ধরে নিয়েছিল যে এটি মিন্ট্রার বিজ্ঞাপন। পরে জানা যায়, স্ক্রোলড্রোল নামে এক সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী ওই ছবিটি পোস্ট করেছিলেন, মূল উদ্দেশ্য ছিল একবিংশ শতকের প্রযুক্তি ব্যবহার করলে কী হবে দেখানো। এই বছরের শুরুর দিকে আরেকটি বিতর্কেও জড়িয়ে পড়েছিল জনপ্রিয় এই ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম। মুম্বাই সাইবার ক্রাইমে কাছে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয় ‘মিন্ট্রা’র নামে। মিন্ট্রার লোগোটি মহিলাদের প্রতি অপমানজনক এবং আপত্তিকর বলে অভিযোগ করেছিলেন এক মহিলা। পরে সমস্ত জায়গা থেকে সরকারীভাবে লোগো পরিবর্তন করেছিল ফ্লিপকার্টের মালিকানাধীন এই সংস্থা।