Friday, February 3, 2023

বিজেপি বাইক বাহিনীর উপর হামলা সিপিআইএমের, বোমাবৃষ্টির মাঝে নামল আধা সেনা

- Advertisement -

বিধানসভা ভোট এখনও ঘোষণা হয়নি। তবে যেকোনওদিন ঘোষিত হবে। আর নির্বাচন সামনে রেখে শাসক বিজেপি বনাম প্রধান বিরোধী দল সিপিআইএমের সংঘর্ষে একের পর এক এলাকা রণক্ষেত্র। (CPIM BJP Clash) বারবার বিজেপি আশ্রিত বাইক বাহিনী বেদম প্রহৃত হচ্ছে। এই ঘটনাকে ‘পাল্টা’ বলে চিহ্নিত করছেন বাম নেতারা। এবার ভয়াবহ পরিস্থিতি (Tripura) ত্রিপুরার সিপাহীজলা জেলার চড়িলাম বাজারের।

মুহূর্মুহ বোমা পড়ছে চড়িলাম বাজারে। উত্তরপূর্ব ভারতের বাংলাভাষী প্রধান ত্রিপুরার অন্যতম সংবাদপত্র ‘সন্দ্যন’ সহ সোশ্যাল সাইটের বিভিন্ন ফুটেজে দেখা যাচ্ছে সিপিআইএম সমর্থকরা নিজেদের দলীয় ঝান্ডাকে ডান্ডা বানিয়েই তেড়ে যাচ্ছেন বাইক বাহিনীর দিকে।

সিপিআইএমের অভিযোগ, বিজেপির বাইক বাহিনী প্রথমে হামলা চালায়। তবে শাসক বিজেপির দাবি, তাদের দলীয় সমর্থকদের বেশ কয়েকজন জখম। হামলা চালিয়েছে বাম শিবির।

- Advertisement -

জানা যাচ্ছে, সিপিআইএম ও বিজেপির মধ্যে সংঘর্ষে পশ্চিম ত্রিপুরার সিপাহীজলার চড়িলাম বাজারে বোমা বৃষ্টি হয়েছে। কমপক্ষে ৮টি বোমা পড়েছে পুলিশের সামনেই। কোনওরকমে তেড়ে যাওয়া সিপিআইএম সমর্থকদের আটকায় পুলিশ। তবে পুলিশের সামনেই কয়েকজম বাইক আরোহীকে মারধর করা হয়। তারা সবাই বিজেপির সমর্থক। সিপিআইএমের অভিযোগ, তাদের মিছিলে হামলা করতে এসেছিল বাইক বাহিনী।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মোতায়েন পুলিশ টিএসআর ও আধা সামরিক বাহিনী। চড়িলামের পরিস্থিতি ঘোরালো। এদিকে রাজধানী আগরতলায় বিরাট মিছিল করে বিরোধী দল সিপিআইএম। সেখানেও দনীয় সমর্থকদের উগ্র মেজাজ দেখা যায়।

জানা যাচ্ছে মঙ্গলবার রাত থেকে সিপাহীজলার কয়েকটি এলাকায় হামলায় অভিযুক্ত বিজেপি। বুধবার সকাল থেকে রণক্ষেত্র পুরো এলাকা।

রাজনৈতিক বিশেষকরা বলছেন, ত্রিপুরা সিপিআইএমের রাজ্য সম্পাদক জীতেন্দ্র চৌধুরী হবার পর থেকে আক্রমণাত্মক ভূমিকায় দেখা যাচ্ছে বিরোধী দলকে। গত বিধানসভা ভোটে এ রাজ্যে টানা ২৫ বছরের বামফ্রন্ট সরকারের পতন হয়। এরপর যতগুলি ভোট হয়েছে তাতে তীব্র হিংসাত্মক পরিস্থিতি তৈরিতে অ়ভিযুক্ত শাসকদল বিজেপি।

অন্যদিকে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে জর্জরিত হচ্ছে বিজেপি। বারবার বিতর্কে জড়ানোয় বিপ্লব দেবকে মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে সরিয়েছে বিজেপি। নতুন মুখ্যমন্ত্রী ডা মানিক সাহা শান্তিপূর্ণ পরিবেশের আশ্বাস দিলেও তাঁর দলের বিরুদ্ধেই হামলার অভিযোগ উঠেছে আরও। বিরোধী দলনেতা ও প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার বলেছেন জনগণ জবাব দিতে তৈরি।