Gujarat Bridge Collapse: গুজরাটে সেতু ভেঙে ১৪০ অধিক নিহত, মোদী বললেন ‘দু:খজনক’

29

এত মৃত্যুর দায় কার? উঠছে প্রশ্ন

gujrat

ভয়াবহ রবিবার রাত পার করে আরও এক ভয়াবহ সকাল-সোমবার। গুজরাটে মোরবি জেলায় সেতু ভেঙে (Gujarat Bridge Collapse) নিহতের সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে। এত মৃত্যুর দায় কার? উঠছে প্রশ্ন। কার গাফিলতিতে দুর্ঘটনা খতিয়ে দেখতে ৫ সদস্যের কমিটি গঠন করেছে গুজরাট সরকার। এদিকে অভিযোগ, ভোটের আগে তড়িঘড়ি সেতু সংস্কার করে বিজ্ঞাপনের ঢাক পিটিয়েছিল বিজেপি। প্রধানমন্ত্রী (Modi) মোদীকে খুশি করতেই নেওয়া হয় এমন পদক্ষেপ।

দুর্ঘটনার পর টুইট করেছেন মোদী। তিনি বলেছেন দু:খজনক ঘটনা। শোক জানিয়েছেন রাহুল গান্ধী। গুজরাট বিধানসভা ভোটের আগে এই দুর্ঘটনা রাজনৈতিক বিতর্ক তুঙ্গে নিয়ে গেছে। এ রাজ্যে সরকারে থাকা বিজেপি প্রবল বিড়ম্বিত।

  • নদীতে তলিয়ে কতজন সঠিক হিসেব নেই
  • NDTV জানাচ্ছে নিহতের সংখ্যা ১৪০ অধিক
  • প্রবল চাপের মুখে মুখ্যমন্ত্রী ভূপেন্দ্র প্যাটেল দুর্ঘটনাস্থলে
  • নির্বাচনের আগে তড়িঘড়ি সংস্কার করার অভিযোগ

নির্বাচনের জন্যই কোনওরকমে সারাই করে মচ্ছু নদীর উপর সেতু খুলে দেওয়ার পরিণতিতে ভয়াবহু বিপর্যয়। এমনই অভিযোগ উঠেছে। গুজরাটে এই সেতু বিপর্যয়ে রবিবার থেকে ঠিক কতজন নিহত তা স্পষ্ট নয়। তবে উদ্ধারকারীরা বলেছেন, সেতুর ভেঙে যাওয়া অংশের নিচে আরও অনেকে নিখোঁজ।

গুজরাট বিধানসভা নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রী মোদী (Modi) প্রবল বিড়ন্বনায়। রাজ্য জুড়ে একের পর এক প্রকল্প শিলান্যাসের যে কর্মসূচি নিয়েছে বিজেপি তারই অন্যতম ছিল মোরবি জেলায় ১৪২ বছরের পুরনো সেতুর সংস্কার। সেই সেতু সংস্কারের পর খুলে দিতেই বিপত্তি। রবিবার সেটি ভেঙে পড়ে। দুর্ঘটনার সময় সেতুর উপর কমপক্ষে ৪০০ জন ছিলেন। ভোটের আগে মোদীকে খুশি করতেই এমন তড়িঘড়ি সেতু সংস্কার হয়েছে বলে অভিযোগ।

  • সেতু বিপর্যয়ে পর্যটকদের মৃত্যু সংখ্যা বাড়ছে
  • কতজন চাপা পড়েছেন তার হিসেব নেই
  • আরও মৃত্যুর আশঙ্কা
  • গুজরাট রাজ্য সরকার ও কেন্দ্রের তরফে ক্ষতিপূরণ ঘোষণা

গুজরাট বিধানসভা ভোটের জন্য প্রধানমন্ত্রী মোদীর সফরের মধ্যেই সেতু বিপর্যয়ে বিব্রত বিজেপি।  সাম্প্রতিক সময়ে এত বড় বিপর্যয় আর ঘটেনি।          

পিটিআই ও এএনআই জানাচ্ছে, মোরবি জেলায় সেতু ভেঙে নিহতের সংখ্যা বাড়ছে।এই সেতু মেরামতি করে চার দিন আগে ফের খুলে দেওয়া হয়। আর পাঁচ দিনের মাথায় সেই সেতু ভাঙল।  ঘটনাস্থলে পুলিশ ও বিপর্যয় মোকাবিলা কর্মীরা গিয়েছেন।

বিধানসভা ভোটের আগে এমন দুর্ঘটনার পর রাজ্যের শাসক বিজেপির দিকে সংস্কারমূলক কাজের ফিরিস্তি দেওয়ার পর তীব্র কটাক্ষ শুরু হয়েছে। দিন কয়েক আগে এই সেতু সংস্কার করে পুনরায় চালু করা হয়। সেই তথ্য দিয়ে নির্বাচনী প্রচার করেছে বিজেপি।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)