‘নিষিদ্ধ’ PFI সমর্থকদের হামলা, বিজেপি অফিস ভাঙচুর

কেরলের বাম সরকার আগেই নিষিদ্ধ করেছে পিএফআই-কে। ভারত সরকার কবে নিষিদ্ধ ঘোষণা করবে সেই প্রশ্নে বিতর্ক শুরু।

44

জঙ্গি কার্যলাপে টাকা দেওয়ার মামলায় দেশের ১০ জায়গায় ED ও NIA যৌথভাবে তল্লাশি অভিযানে চালায় বৃহস্পতিবার। অভিযোগ, পপুলার ফ্রন্ট অফ ইন্ডিয়া (পিএফআই) ও এর সাথে সম্পর্কিত বিভিন্ন গোষ্ঠির লেনদেন জানতে সারা দেশে অভিযান চালানো হয়। শুক্রবার এই অভিযানের প্রতিবাদে কেরলে এক দিনের ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে পপুলার ফ্রন্ট অফ ইন্ডিয়া। এদিকে বনধের মাঝেই রাজ্যজুড়ে বিক্ষিপ্ত অশান্তির খবর প্রকাশ্যে এল। ভাঙচুর চালানো হল BJP-র কার্যালয়।

সংগঠনটি কেরল সহ বিভিন্ন রাজ্যে নিষিদ্ধ। পিফআইকে ভারত সরকার নিষিদ্ধ করার প্রক্রিয়া চালাচ্ছে। 

এদিকে NIA অভিযান ও ধরপাকড়ের জেরে কেরল, তামিলনাড়ু সহ বিভিন্ন স্থানে চলছে PFI সমর্থকদের ব্যাপক ভাঙচুর। তামিলনাড়ুতেও বিজেপি অফিসে হামলা হয়েছে। কোচিতে সরকারি বাসে ভাঙচুর চালানো হয়েছে। এছাড়াও, তিরুবনন্তপুরমে ভাঙচুরের খবর পাওয়া গেছে।

জঙ্গি কর্মকাণ্ডে অর্থায়নের অভিযোগে পিএফআইয়ের বিরুদ্ধে কলকাতা সহ দেশ জুড়ে NIA অভিযান চালানো হয়েছিল। তবে পিএফআই-এর এক সদস্য বলেন, তাদের রাজ্য কমিটি দেখেছে, সংগঠনটির নেতাদের গ্রেফতার ‘রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় সন্ত্রাসবাদের’ অংশ।

পিএফআই-এর রাজ্য সাধারণ সম্পাদক এ আব্দুল সাথার বলেন, “আরএসএস নিয়ন্ত্রিত ফ্যাসিস্ট সরকারের কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলিকে ব্যবহার করে ভিন্নমতের কণ্ঠরোধ করার প্রচেষ্টার বিরুদ্ধে ২৩ শে সেপ্টেম্বর রাজ্যে এই ধর্মঘটের আয়োজন করা হবে। যা চলবে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত।”