Bank Strike: ইউনিয়ন করলেই মোদী সরকারের ‘শাস্তি’ প্রতিবাদে দেশজোড়া ব্যাঙ্ক ধর্মঘট

AIBEA দেশের সব থেকে বড় ব্যাঙ্ক কর্মচারি সংগঠন। তারা ডেকেছে ধর্মঘট।

87

মোদীর নেতৃত্বে বিজেপির সরকার শ্রমিক-কর্মচারীদের সংগঠন করার অধিকারে বেআইনি হস্তক্ষেপ করছে। অথচ ইউনিয়ন করা আইনত স্বীকৃত। ব্যাঙ্ক কর্মচারীরা তাই সাংগঠনিক অধিকার বজায় রাখবেন। এই অবস্থান থেকে সারা ভারত ব্যাঙ্ক কর্মচারি সংগঠন (AIBA) শনিবার দেশজোড়া ব্যাঙ্ক ধর্মঘট (Bank Strike) পালন করবে।

  • AIBEA দেশের সব থেকে বড় ব্যাঙ্ক কর্মচারি সংগঠন
  • ১৯৪৬ সালে সংগঠনটি তৈরি হয়
  • CPI দলের শ্রমিক সংগঠন AITUC অনুমোদিত AIBEA

AIBEA ব্যাঙ্ক কর্মচারি সংগঠনটির দাবি, দেশে অচল হয়ে যাবে ব্যাঙ্কিং পরিষেবা। সরকারি ও বেসরকারি সব ব্যাঙ্কেই প্রভাব পড়বে।

AIBEA তরফে জানানো হয়েছে, যে সকল ব্যাঙ্ক কর্মীরা ইউনিয়নের কর্মকাণ্ডে  জড়িত, তাদের উপর বেছে বেছে আক্রমণ হানা হচ্ছে। তাদেরকে নানা ক্ষেত্রে টার্গেট করা হচ্ছে।  এর প্রতিবাদে হবে ধর্মঘট।

AIBEA  সাধারণ সম্পাদক সি এইচ ভেঙ্কটাচলম জানান, সাম্প্রতিক সময়ে আক্রমণ শুধু বাড়ছেই না এই সব আক্রমণের মধ্যে একটি অভিন্ন যোগসূত্র রয়েছে। তাঁর বক্তব্য, কেন্দ্রের এনডিএ সরকার চায়না কোনওভাবেই সরকারের নীতির সমালোচনা হোক। বিশেষত ব্যাঙ্ক পরিষেবায়। এদিকে অর্থনৈতিক অবস্থা খুবই চিন্তাজনক। এসব নিয়ে সাংগঠনিকস্তরে প্রতিবাদ হলেই ছলে কৌশলে কর্মীদের উপর অমানবিক চাপ তৈরি করা হচ্ছে।

দেশের অন্যতম বৃহত ব্যাঙ্ক কর্মচারি সংগঠনের ডাকা ধর্মঘটের জেরে শনিবার দেশজুড়ে স্তব্ধ হয়ে যাবে ব্যাঙ্ক পরিষেবা। এমনকি এটিএম পরিষেবাতেও প্রভাব পড়তে চলেছে বলেই মনে করা হচ্ছে। শনিবার ধর্মঘট। রবিবার সাপ্তাহিক ছুটি। সপ্তাহ শেষে ব্যাঙ্ক হবে স্তব্ধ।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)