Japan: বুড়ো হয়ে যাচ্ছে জাপান, দ্রুত কমছে জন্মহার

গোটা বিশ্বের উন্নত দেশগুলির মধ্যে একটি হল জাপান (Japan)। পৃথিবীর সমস্ত উন্নত দেশগুলির মধ্যে জাপান হয়তো প্রথম সারিতে থাকবে। কিন্তু আশঙ্কার বিষয় হল জাপানের ভবিষ্যৎ…

Drops japan birth rate

গোটা বিশ্বের উন্নত দেশগুলির মধ্যে একটি হল জাপান (Japan)। পৃথিবীর সমস্ত উন্নত দেশগুলির মধ্যে জাপান হয়তো প্রথম সারিতে থাকবে। কিন্তু আশঙ্কার বিষয় হল জাপানের ভবিষ্যৎ দিন দিন এক অনিশ্চিত ভবিষ্যতের মুখে পড়তে যাচ্ছে। দেশটিতে জন্মহার (Birth Rate)কমতে কমতে এখন তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। যা জাপানের জন্য এক ভয়াবহ দুঃস্বপ্ন।

এনডি টিভি সূত্রে জানা গিয়েছে, জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিসিদার (Fumio Kishida) এক উপদেষ্টা জাপানের ভবিষ্যৎ নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। তিনি জানিয়েছেন জাপানে যদি মানুষের জন্ম হার বৃদ্ধি করা না যায় তাহলে ভবিষ্যতে আর জাপানের অস্তিত্ব টিকে থাকবে না।

টোকিওতে তার দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারের মাসিও মোরি জানান, দেশের জন্মহার যদি এইভাবে চলতে থাকে তাহলে তার অস্তিত্ব আর টিকিয়ে রাখা যাবে না। আমরা সকলেই জানি যেকোনও দেশের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার জন্য তার জনসংখ্যা এক বিশাল ভূমিকা পালন করে। জনসংখ্যা এমন এক রাষ্ট্রীয় শক্তি যা পররাষ্ট্রীয় যেকোনও থাবা থেকে নিজের রাষ্ট্রকে রক্ষা করতে পারে। যদি কোন দেশের জনসংখ্যা কমতে থাকে, তাহলে বুঝতে হবে সেই দেশটি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার দিকে দিন দিন এগিয়ে চলেছে।

গত মাসের ২৬ তারিখে জাপানের এক ঘোষণা অনুযায়ী ২০২২ সালে জাপানের জনসংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে হ্রাস পেয়েছে। দেশটিতে গত বছর রেকর্ড হারে জন্ম সংখ্যা কমেছে। যার কারণে দেশটির ভবিষ্যৎ আশঙ্কা নিয়ে বেশ কিছু মন্তব্য করেন জাপানের প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা। প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী ২০২২ সালে জাপানের যত শিশুর জন্ম হয়েছে তার চেয়ে দ্বিগুণ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। জন্মের তুলনায় গত বছর জাপান দ্বিগুণ মানুষ হারিয়েছে।

এই গোটা বিষয়টি একেবারেই অপ্রত্যাশিত ছিল জাপানের জন্য। জানা গিয়েছেন গত বছর জাপানে মোট ৮ লক্ষ শিশুর জন্ম হয়েছে। এবং মৃত্যু হয়েছে মোট ১৮ লক্ষ মানুষের। যদি দ্বিগুণের চেয়েও বেশি। এমন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে যাচ্ছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী। তিনি শিশু এবং তাদের পরিবারের উপর দ্বিগুণ ব্যয় করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। ২০০৮ সালে জাপানের জনসংখ্যা ছিল ১২ কোটি ৮০ লাখ। সেখানে কমতে কমতে জনসংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২ কোটি ৪০ লাখ। প্রায় চোদ্দো বছরের ব্যবধানে জাপানে জনসংখ্যা হ্রাস পেয়েছে ৪০ লাখ।

এছাড়া জাপানের ৬৫ বছর কিংবা তার বেশি বয়সের মানুষের অনুপাত গতবছর ছড়িয়েছে ২৯ শতাংশ। জাপানে জনসংখ্যা বৃদ্ধি না করা হলে দেশটি ভয়াবহ আশঙ্কার মুখে পড়তে পারে। কারণ দেশের জন্য জনসংখ্যা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সামাজিক নিরাপত্তা থেকে দেশ রক্ষার জন্য সামরিক বাহিনীর প্রয়োজন। প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা বলেন জনসংখ্যার হার ধীরে পড়ছেনা বরং একবারে নীচে পড়ছে। এই নিয়ে ব্যবস্থা না নেওয়ায় হলে সামাজিক নিরাপত্তা একেবারেই ভেঙে পড়বে। হ্রাস পাবে শিল্প, অর্থনৈতিক ব্যবস্থা।