TMC: প্রার্থী নিয়ে অসন্তোষে কামারহাটিতে ধর্মঘট করল তৃণমূল

45
TMC

দলের (TMC) তরফে নয় তবে দলীয় সমর্থকরা ভেঙে দিলেন মমতার পণ। তারা ধর্মঘট করলেন। অথচ রাজ্যে ক্ষমতা য় আসার পর টিএমসি ধর্মঘট করবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কিন্তু পুরভোটে সব কিছু যেন নিয়ন্ত্রণহীন বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। 

পুরসভা নির্বাচনে প্রার্থী নিয়ে অসন্তোষের জেরে রবিবার ধর্মঘট হল উত্তর ২৪ পরগনার কামারহাটি। এদিন এলাকায় সমস্ত যানবাহন বন্ধ রাখার কথা আগেই ঘোষণা করে টিএমসির শ্রমিক সংগঠন INTTUC

বিক্ষোভকারীদের বক্তব্য, যাঁরা দীর্ঘদিন তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে যুক্ত, তাঁদেরই টিকিট দেওয়া হয়নি। তার বদলে টিকিট দেওয়া হয়েছে সুবিধাবাদীদের। তাঁদের দাবি মানা না হলে বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন তৃণমূলের ট্রেড ইউনিয়নের এক নেতা। ধর্মঘটের জেরে এলাকায় বন্ধ বাস, অটো সহ প্রায় সমস্ত যানবাহন।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার তৃণমূলের তরফে ১০৮টি পুরসভা ভোটের প্রার্থী ঘোষণা করা হয়। দলের ফেসবুক পেজে প্রকাশিত হয় তালিকা। তার পর থেকেই একাধিক জায়গায় শুরু হয় অসন্তোষ। পরিস্থতি ক্রমশ জটিল আকার ধারণ করে। রাজ্যের একাধিক জায়গা থেকে বিক্ষোভের খবর আসতে থাকে। সাংসদ-বিধায়ক সহ অনেক দলীয় কর্মীই এই তালিকায় খুশি নন বলে জানা যায়। পরিস্থিতির গুরুত্ব আঁচ করে তৃণমূলের তরফে জানানো হয় চূড়ান্ত তালিকা জেলা সভাপতিদের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তাতেও অসন্তোষ এড়ানো যায়নি। শনিবার রাজ্যের একাধিক জায়গায় দলের কর্মীরা বিক্ষোভ দেখান। রবিবারও তার ব্যতিক্রম হল না।

এদিকে তৃণমূলের এই বিক্ষোভ নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়েছে নানা মহলে। তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে আগে জানানো হয়েছিল কোনও রকম ধর্মঘট তারা সমর্থন করে না। অথচ প্রার্থী তালিকা নিয়ে অসন্তোষের জেরে সেই কথাই রাখতে পারল না দল। কামারহাটি সহ একাধিক জায়গায় ধর্মঘট করেছেন দলীয় কর্মীরা। অনেকেই সমালোচনা করে বলছেন, তৃণমূলের অন্দরে মতবিরোধ প্রচুর। আর সেই কারণে দলের ভাঙনের সিঁদুরে মেঘও দেখছেন কেউ কেউ। যদিও এ নিয়ে দলীয় শীর্ষ নেতৃত্ব তেমন মাথা ঘামাচ্ছে বলে মনে হচ্ছে না। ঘটনায় কামাারহাটির বিধায়ক মদন মিত্র বলেছেন, কিছু কথা তিনি দলের শীর্ষ নেতৃত্বকে জানাবেন। দলীয় কর্মীদের তিনি অনুরোধ করেছেন তাঁরা যেন দল ছেড়ে না যান।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)