জীবনের ১০০০তম ম্যাচে খেলতে নেমে গেল করে মারাদোনাকে টপকে গেলেন লিও মেসি

86
Messi r maradona

নিজের ১০০০তম ম্যাচে খেলতে নেমে গোল। আর তাতেই দিয়েগো মারাদোনাকে টপকে গেলেন লিওনেল মেসি (Messi)। আর্জেন্টিনার হয়ে বিশ্বকাপে গোল সংখ্যায় দিয়াগো মারাদোনাকে টপকে গেলেন লিওনেল মেসি। ২১ ম্যাচে মারাদোনার গোল সংখ্যা ছিল ৮টি। মেসি ২৩ ম্যাচ খেলে এখন পর্যন্ত করেছেন ৯ গোল৷অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে প্রি কোয়ার্টার ফাইনালের ম্যাচে ৩৫ মিনিটে গোল করেন মেসি৷ বিশ্বকাপে এটাই তাঁর নক আউটে করা প্রথম গোল। এর আগে নক আউটে গোল না করলেও ৪টি অ্যাসিস্ট ছিল তাঁরা বিশ্বকাপে মোট আটটি গোল হয়ে গেল মেসির।

প্রথমার্ধে গোলটা হওয়ার আগে অবধি প্রচুর বল পজেশন নিয়ে খেলতে থাকলেও গোল আসছিল না। সারা মাঠ জুড়ে খেলছিলেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার। তাঁকেই ভাঙতে হল অস্ট্রেলিয়ার ডিফেন্স। ওয়াল খেলে ডি বক্সের মাথা থেকে রান করে ভেতরে ঢুকে দারুণ গ্রাউন্ডারে আর্জেন্টিনাকে এগিয়ে দেন মেসি। অস্ট্রেলিয়ার ডিফেন্ডারদের পায়ের তোলা দিয়ে বল জালে জড়িয়ে যায়৷ ১-০ গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় দুই দল৷

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ৫৭ মিনিটে গোল করে ব্যবধান বাড়িয়ে ফেলে আর্জেন্টিনা৷ ডে পল ও আলভারেজের মাঝখান দিয়ে বল কাটাতে গিয়ে চাপে পড়ে যান ম্যাট রায়েন। তাঁর কাছ থেকে বল ছিনিয়ে নিয়ে সরাসরি গোলে শট করেন আল্ভারেজ। ২-০ গোলে এগিয়ে যায় তারা৷ আত্মঘাতী গোলে ব্যবধান কমায় অস্ট্রেলিয়া৷ ক্রেগ গুডউইনের শট আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডার এনজো ফার্নানদেজের পায়ে লেগে বল জালে জড়িয়ে যায়৷ শেষদিকে সমতা ফেরানোর চেষ্টা করতে থাকে অস্ট্রেলিয়া। যদিও তাতে সমস্যা হয়নি।

সহজেই রক্ষণ জমাট রেখে বাকি সময়টা কাটিয়ে দেন আর্জেন্টিনার ফুটবলাররা। দারুণ একটা শটে ফের গোল করে ফেলতে পারতেন মেসি। তবে বল বার উঁচিয়ে চলে যায়৷ লাউতারো মার্টিনেজের জন্য গোল করার সুযোগও তৈরি করেছিলেন মেসি। তবে তাতেও গোল আসেনি।ম্যাচের শেষ মুহূর্তে গোল করে সমতা ফেরানোর সুযোগ পেয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। দারুণ সেড আর্জেন্টিনা গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্টিনেজেরা ম্যাচ শেষের বাঁশি বাজিয়ে দিলেন রেফারি। জিতে কোয়ার্টার ফাইনালে নেদারল্যান্ডসের সামনে মেসিরা।