কমলজিৎ’র হয়ে সাফাই গাইলেন ইস্টবেঙ্গল কোচ স্টিফেন কনস্টাটাইন

205
East Bengal

চলতি ইন্ডিয়ান সুপার লিগ (ISL) টুর্নামেন্টের প্রথম লেগের ডার্বি ম্যাচে ATK মোহনবাগান ২-০ গোলে জিতেছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ইস্টবেঙ্গল এফসির বিরুদ্ধে। হাইপ্রেসার গেমের এই ফলাফল উল্টো হতেও পারতো। কিন্তু ইস্টবেঙ্গল এফসির গোলকিপার কমলজিৎ’র সেকেন্ডের ভুল সিদ্ধান্তে সমস্ত আবেগের জলাঞ্জলি ঘটেছে।

ম্যাচের ৫৬ মিনিট ATKমোহনবাগানের ফুটবলার হুগো বাউমাসের আপাত নিরীহ একটা গোলমুখী শট দেখে লাল হলুদ গোলকিপার কমলজিৎ ডানদিকের বারপোস্টের দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে। অত্যন্ত হাল্কাভাবে কমলজিৎ ওই বলকে আটকানোর চেষ্টা করে।বাউমাসের ওই শট কমলজিৎ’র শরীরের এক্কেবারে সামনে এসে হুঠ করে বাউন্স নেয় সঙ্গে লাল হলুদ গোলকিপার কমলজিৎ’র হাতের গ্লাভস স্পর্শ করে একটা সাংঘাতিক গতি পেয়ে মুহুর্তে ইস্টবেঙ্গলের জালে জড়িয়ে যায়। ১-০ গোলের লিড নেয় সবুজ মেরুন ব্রিগেড, এই গোল ডার্বি ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট।

ডার্বি ম্যাচ শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে কমলজিৎ’র পারফরম্যান্স ইস্যুতে সাফাই গাইতে গিয়ে ইস্টবেঙ্গল এফসি হেডকোচ স্টিফেন কনস্টাটাইন দলের গোলকিপার কমলজিৎ’র পাশে দাঁড়াতে দেখা গেল। সাংবাদিকদের কাছে কনস্টাটাইন যা বললেন তা হল,”ফুটবলে ভুলভ্রান্তি হয়েই থাকে। আজ হয়তো গোলকিপারের ভুল হয়েছে। পরের সপ্তাহে অন্য কেউ ভুল করতে পারে। একা গোলকিপারকে দোষ দেওয়া উচিত নয়। ”

ডার্বি ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ATKমোহনবাগানের বিরুদ্ধে দলের সামগ্রিক পারফরম্যান্সের প্রসঙ্গ উঠতেই স্টিফেন কনস্টাটাইন বলেন, “প্রথমার্ধে আমরাই আধিপত্য করেছি। গোলের একাধিক সুযোগ পেয়েছি। আমরা আগে গোল করে দিতে পারলে ম্যাচের ছবিটাই হয়তো অন্য রকম হত।”

ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট প্রথম গোল তা স্বীকারোক্তির ঢঙে লাল হলুদের বৃটিশ কোচ বলেন,”প্রথম গোলটা খাওয়ার পরে পরিস্থিতি খুবই কঠিন হয়ে পড়ে এবং সেই গোলটার ধাক্কা সামলে ওঠার আগেই আমরা দ্বিতীয় গোল খেয়ে যাই।”

চলতি ISL টুর্নামেন্টে ইস্টবেঙ্গল এফসিকে আরও ১৫ ম্যাচ খেলতে হবে। লাল হলুদ ভক্তদের সাফ কথা,খেলোয়াড়দের মানসিকতায় পরিবর্তন আসলেও,ডার্বিতে দু’গোল খাওয়ার আগে দলের ডিফেন্স খুবই নড়বড়ে ছিল। ডিফেন্ডারদের মধ্যে মনসংযোগে চিড় ধরার কারণেই এই রেজাল্ট তা স্বীকার করছে ইস্টবেঙ্গল ভক্তরাও।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)