Nisith Pramanik: অমিত শাহর ডেপুটি নিশীথকে চুরির মামলায় গ্রেফতার না করলে পুলিশের জবাবদিহি

তৃ়ণমূলে থাকাকালীন চুরিতে অভিযুক্ত নিশীথ প্রামানিক। বিজেপিতে গিয়ে গ্রেফতারির পরোয়ানা পেলেন।

112
Nisith-pramanik

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামানিককের (Nisith Pramanik) বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির পর দিল্লি সরগরম। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকে (Home Ministry)  পড়েছে শোরগোল। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর (Amit Shah) ডেপুটি নিশীথ। তিনি কোচবিহারের (Cochbehar)  বিজেপি সাংসদ।

আলিপুরদুয়ার (Alipurduar) আদালত থেকে জারি হয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামানিকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা। এর পর প্রবল অস্বস্তিতে রাজ্য বিজেপি। জানা যাচ্ছে গ্রেফতারি এড়াতে আইনজীবীদের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করছেন নিশীথ।

Nisith-pramanik

মামলার তারিখ অনুসারে দেখা যাচ্ছে তৃ়ণমূল কংগ্রেসে থাকাকালীন নিশীথ প্রামানিকের বিরুদ্ধে দুটি চুরির ঘটনায় অভিযোগ দায়ের হয়েছিল।

  • ২০১৯ সালে তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে নিশীথ যোগ দেন বিজেপিতে
  • লোকসভা নির্বাচনে কোচবিহার থেকে জয়ী হন
  • নিশীথ প্রামানিককে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী করা হয়
  • সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রকগুলির একটির রাষ্ট্রমন্ত্রী হন নিশীথ

নিশীথ প্রামানিকের বিরুদ্ধে সোনার দোকানে চুরির মামলায় চাঞ্চল্যকর মোড় নিয়েছে। কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার সহ উত্তরবঙ্গ (North Bengal)  জুড়েই প্রবল আলোড়ন।

মঙ্গলবার গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির পর আলিপুরদুয়ার আদালতের সরকারি আইনজীবী জহর মজুমদার জানান, ২০০৯ সালের দুটি মামলার বিচারের নিশীথ প্রামাণিকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আলিপুরদুয়ারের জুডিশিয়াল মেজিস্ট্রেট থার্ড কোর্টের বিচারক। আগামী ৭ ডিসেম্বরের মধ্যে নিশীথ প্রামানিককে গ্রেফতার করে আদালতে হাজির করতে হবে পুলিশকে। তা না হলে কেন গ্রেফতার করতে পারল না পুলিশ সেই কারণটি  জানাতে হবে।

কেন্দ্রীভূত স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামানিকের আইনজীবী দুলাল ঘোষ জানান, ১১ নভেম্বর ফার্স্ট কোর্টে আমি বিকেল চারটে পর্যন্ত উপস্থিত ছিলাম। কোনও শুনানি হয়নি। পরে সাতটা নাগাদ থার্ড কোর্টের বিচারক এই নির্দেশ দিয়েছেন বলে শুনেছি। আমার অজ্ঞাতে এই নির্দেশ হয়েছে। আমরা ভবিষ্যতে কী করব তা পরে জানাব।

Nisith-pramanik

নিশীথ প্রামানিকের বিরুদ্ধে অভিযোগে বলা হয়েছে, ২০০৯ সালে আলিপুরদুয়ার শহরের বাদল নগরে জয়গুরু জুয়েলার্সে চুরির ঘটনা ঘটেছিল। সেই বছর ২ মে আলিপুরদুয়ার থানায় অভিযোগ জানিয়েছিলেন  দোকানের মালিক রতন ঘোষ। কয়েকদিন পর বীরপাড়ার পাল জুয়েলার্সে চুরির ঘটনা ঘটে। ২০০৯ সালের ১৩ মে সেই চুরির  ঘটনায় আলিপুরদুয়ার থানায় অভিযোগ দায়ের হয়। দুটি সোনার দোকানে চুরির ঘটনায় অভিযুক্ত  নিশীথ প্রামানিক।

এদিকে  চুরির মামলায় চলতি বছর ১২ জুলাই  বিধাননগরে এমপি, এমএলএ কোর্টে আত্মসমর্পণ করেন কোচবিহারের বিজেপি সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নিশীথ প্রামাণিক। আদালত পাঁচ হাজার টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে তাঁর জামিন মঞ্জুর করে। এবার আলিপুরদুয়ার আদালত থেকে নিশীথ প্রামানিকের বিরুদ্ধেই জারি হয়েছে গ্রেফতারি পরোয়ানা।

সম্প্রতি উত্তরবঙ্গ ভেঙে আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল গঠনের জন্য যে বিতর্ক উঠেছে তাতে নিশীথ প্রামানিক বলেন একমাস অপেক্ষা করুন। শিলিগুড়িতে তিনি ও গ্রেটার কোচবিহার নেতা অনন্ত মহারাজ দীর্ঘ বৈঠক করেন। এরপর অনন্ত দাবি করেন রাজ্য ভাগ হচ্ছেই।

সম্প্রতি কোচবিহারে নিশীথের কনভয়ে হামলায় অভিযুক্ত হয় তৃণমূল কংগ্রেস। দিনহাটার বিধায়ক ও উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী উদয়ন গুহর সঙ্গে তীব্র উত্তেজক রাজনৈতিক বাদানুবাদে চলে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামানিকের।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)