Anubrata Mondal: দিল্লি নয় আসানসোল জেলেই থাকতে হবে, কেষ্টর উকিলবাবু জামিন চাইলেন না

15

জামিন চেয়ে কোনও আবেদনই করেননি গোরু পাচার মামলায় ধৃত (TMC) তৃ়ণমূল কংগ্রেস বীরভূম জেলা সভাপতি (Anubrata Mondal) অনুূব্রত মণ্ডলের আইনজীবী। আদালতের নির্দেশে ফের ১৪ দিনের জেল হেফাজতে মমতার কাছে ‘বীর’ উপাধি পাওয়া কেষ্ট। 

এটি কি আইনি চাল? উঠছে প্রশ্ন। কারণ জেলে আরও ১৪দিন থাকার নির্দেশের ফলে এই সপ্তাহে অনুব্রত মণ্ডলকে দিল্লি নিয়ে যেতে পারছে না ইডি। অনুব্রতকে আসানসোল জেল থেকে দিল্লি নিয়ে গিয়ে জেরা করতে মরিয়া ইডি। এর আগে দিল্লিতে নিয়ে গিয়ে জেরার পর তিহার জেলে ঠাঁই হয়েছে অনুব্রতর সরকারি দেহরক্ষী পদে থাকা সায়গল হোসেনের। তার মাধ্যমে গোরু পাচারের ব্যবসা করতেন অনুব্রত বলেই তদন্তে উঠে এসেছে।

তবে গোরু পাচার তদন্তে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শুক্রবার দিল্লিতে ইডি সদর দফতরে হাজিরা দিয়েছেন অনুব্রত কন্যা সুকন্যা মণ্ডল। তার ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্টে কোটি কোটি টাকা লেনদেন নিয়ে চলছে তদন্ত। যদিও আগেই সুকন্যা জানান, আমি কিছু জানিনা বাবা সব জানেন।

এদিকে ইডি ও সিবিআই দুই তদন্তকারী সংস্থার হেফাজতে আসানসোল জেলে বন্দি অনুব্রত মণ্ডল। তিনি দিল্লিতে ইডির জেরা আটকাতে মরিয়া। 

অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে অনুব্রতর আইনজীবীরা জামিনের আবেদন জানাবেন না বলেই মনে করা হয়েছিল। তাই করা হয়েছে। ফলে মমতার ‘বীর’কে এখনই গোরু পাচার মামলায় দিল্লি নিয়ে যেতে পারছেনা ইডি।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)