সুশান্তের রহস্যমৃত্যু: ম্যানেজার দিশার মৃত্যুর ঘটনার তদন্তের দাবিতে #BoycottSalmanKhan

225
SSR DISHA MURDER LINKED

বায়োস্কোপ ডেস্ক: সুশান্ত সিং রাজপুতের (sushant singh rajput) মৃত্যুর ঠিক ৫ দিন আগে অস্বাভাবিক ভাবে মৃত্যু হয় তাঁর প্রাক্তন ম্যানেজার দিশা সালিয়ানের। তাঁর প্রাক্তন ম্যানেজারের মৃত্যুর খবর জানার পর থেকেই নাকি অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন সুশান্ত। এমনটাই সিবিআইকে জানিয়েছিলেন প্রয়াত অভিনেতার বন্ধু, ফ্ল্যাটের সঙ্গী এবং ক্রিয়েটিভ ও কনটেন্ট ম্যানেজার সিদ্ধার্থ পিঠানি।

গতবছরের ৯ জুন মালাড অঞ্চলের একটি বহুতলের ১৪ তলা থেকে পড়ে দিশার মৃত্যু হয়। দিশা সালিয়ান আত্মহত্যা করেছেন এই দাবি বিভিন্ন মহলে করা হলেও মুম্বই পুলিশ এই ঘটনা ‘অ্যাক্সিডেন্টাল ডেথ’ হিসেবেই গণ্য করেছে। যদিও দিশার ময়নাতদন্তের রিপোর্টে দেখা গিয়েছে, তাঁর মাথায় এবং শরীরে একাধিক আঘাত রয়েছে। প্রাথমিক রিপোর্টে যৌনাঙ্গে আঘাতের চিহ্ন দেখা গেলেও ময়নাতদন্তের রিপোর্টে তার কোনও উল্লেখ নেই। মৃত্যু হওয়ার প্রায় দু’দিন পরে করানো সেই ময়নাতদন্তের রিপোর্ট নিয়েও তৈরি হয়েছিল বিতর্ক। বিভিন্ন মহল থেকে বারবার আওয়াজ উঠেছিল, দিশা এবং সুশান্তের মৃত্যু একসুতোয় গাঁথা। যদিও সমাধান হয়নি কোনও মৃত্যু রহস্যেরই। প্রায় একবছর কেটে যাওয়ার পর আবার নতুন করে সামনে এসেছে সেই দাবি। আর এই ঘটনার পিছনে সলমন খানের হাত দেখতে পাচ্ছে নেটদুনিয়া৷ আর তাই টুইটারে #BoycottSalmanKhan ক্যাম্পেন বেশ জোরাল আকার নিয়েছে৷

এক প্রত্যক্ষদর্শী সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, দিশাকে যৌন নিগ্রহ করা হয়েছিল। পেশায় অভিনেতা এই ব্যক্তি বলেছিলেন, ৮ জুন মুম্বইয়ের মালাডে নিজের ফ্ল্যাটেই পার্টি চলাকালীন যৌন নিগ্রহের শিকার হন দিশা। তিনি ৮ জুন রাত ৯টা থেকে সাড়ে ৯টার মধ্যে দিশার ফ্ল্যাটে পৌঁছন। এক ঘণ্টা পর্যন্ত পার্টি ভালো ভাবেই চলে। এরপর একটি ঘরে চলে যান দিশা। তাঁর সঙ্গে আরও কয়েকজন ছিলেন। সেই ঘরের শব্দ যাতে বাইরে না যায়, তার জন্য জোরে গান চালিয়ে দেওয়া হয়। দিশার মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছিলেন সুশান্ত। তিনি বন্ধুদের ফোন করে বলেছিলেন, দিশাকে খুন করা হয়েছে বলে সন্দেহ হচ্ছে। এই ঘটনার তদন্ত চাইছিলেন সুশান্ত। কিন্তু তিনি সেই সুযোগ পাননি।

১৪ জুন, ২০২০। মুম্বইয়ের নিজের ফ্ল্যাট থেকে পাওয়া গিয়েছিল অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের ঝুলন্ত দেহ। তারপরেই বলিউড ঘনিষ্ট বিভিন্ন মহলে শোনা গিয়েছিল, আদিত্য পাঞ্চোলির ছেলে সুরজ পাঞ্চোলির সঙ্গে সম্পর্ক ছিল দিশার। তাঁরই সন্তানের মা হতে চলেছিলেন দিশা। তাঁর এবং কিছু ‘বলিউড বিগিস’ (Bollywood Biggies) এর গভীর ষড়যন্ত্রের শিকার হন দিশা এবং সুশান্ত। বন্ধু আদিত্য পাঞ্চোলির ছেলে সূরজের জন্যই সলমন খানও নাকি সুশান্তকে ‘ব্ল্যাকলিস্ট’ করে দিয়েছিলেন বলে শোনা গিয়েছিল। প্রসঙ্গত এর আগেও আরেক বলিউড অভিনেত্রী জিয়া খানের রহস্যমৃত্যু’তেও নাম জড়িয়ে ছিল সুরজ পাঞ্চোলির। তাতে জড়িয়ে পড়েছিলেন বলিউডের অনেক নাম করা ব্যক্তিও।

মুম্বই পুলিশ সুশান্তের মৃত্যুকে আত্মহত্যা বলে ঘোষণা করলেও অভিনেতার বাবার করা মামলায় সুশান্তের অস্বাভাবিক মৃত্যুর তদন্ত নতুন করে শুরু হয়। CBI, ED আর NCB এই ত্রিফলা তদন্ত শুরু হয় অভিনেতার বাবার দাবি মেনেই। যদিও তারপর প্রায় একবছর কেটে গেলেও তাঁর পরিবারের কাছে কোনও ‘ক্লোজার’ নেই।

ক্লোজার না পাওয়া গেলেও গোটা তদন্ত প্রক্রিয়াতে সামনে এসেছিল বেশ কয়েকটি নাম, যার মধ্যে অন্যতম সুশান্তের গার্লফ্রেন্ড রিয়া চক্রবর্তী। তদন্ত প্রক্রিয়া চলাকালীন বহুদিন জেলেও কাটাতে হয়েছে তাঁকে। যদিও আবার নতুন জীবনে ফিরেছেন তিনি, অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে তাঁর অভিনীত সিনেমাও মুক্তি পাবে দিন কয়েকের মধ্যেই। আঙুল উঠেছিল করণ জোহরের দিকেও, তাঁর প্রযোজিত-পরিচালিত সিনেমা বয়কটের দাবিতে ভরে গিয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়া। সেসব পেড়িয়ে এখন সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে তাঁর প্রযোজিত সিনেমা ‘শেরশাহ’র জয়জয়কার।

একমাত্র সুশান্ত সিং রাজপুত এবং তাঁর মৃত্যু রহস্য যে তিমিরে ছিল সেই তিমিরেই রয়েছে। অনেকে জানাচ্ছেন, খুব নিপুনভাবে গোটা তদন্ত প্রক্রিয়ায় একবারও সামনে আনা হয়নি দিশা সালিয়ানের ঘটনা। যা সামনে আসলে হয়তো মোড় ঘুরে যেত এই মামলার। সমাধান হয়ে যেত সুশান্ত মৃত্য রহস্যের। কিন্তু কার কৌশলে গোটা তদন্তেই এড়িয়ে যাওয়া হয়েছে দিশার ঘটনা। তাহলে কি গতবছরের অভিযোগগুলিই সত্যি বলে প্রমাণিত হল। গোটা ঘটনাতেই জড়িত বলিউডের অনেক বড় নাম। যাদের বাঁচাতেই ছিঁড়ে দেওয়া হয়েছে সুশান্ত-দিশা মামলার যোগসূত্র। প্রশ্ন অনেক, কিন্তু একবছর পরেও উত্তর নেই কোনওটিরই।