কাঁপছে পাকিস্তান: ভারতের নিয়ন্ত্রণে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ

নিউজ ডেস্ক, নয়াদিল্লি: আজ থেকে পুরো অগস্ট ভারত হতে চলেছে বিশ্বের সব থেকে শক্তিশালী দেশ৷ স্বাধীনতার এই একমাস বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী সংস্থা জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের…

Modi in UNA

নিউজ ডেস্ক, নয়াদিল্লি: আজ থেকে পুরো অগস্ট ভারত হতে চলেছে বিশ্বের সব থেকে শক্তিশালী দেশ৷ স্বাধীনতার এই একমাস বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী সংস্থা জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের কমান্ড ভারতের হাতে চলে এসেছে। আজ পয়লা অগস্ট থেকে ভারত জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণ করেছে৷

এই এক মাসে সমুদ্র নিরাপত্তা, শান্তিরক্ষী মহড়া এবং সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে একটি শক্তিশালী আক্রমণ গ্রহণের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে মোদী হাতে থাকা ভারত। তবে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রেসিডেন্ট হিসেবে ভারতের হাতে আসতেই বেশ চিন্তায় পড়েছে পাকিস্তান৷ কারণ, সন্ত্রাসবাদকে কঠোরভাবে আঘাত করার ক্ষেত্রে ভারতের দৃঢ় সংকল্পে ভীত পাকিস্তান৷ তাদের শঙ্কা ভারত তার শাসনকালে নিরপেক্ষভাবে কাজ করলে সব থেকে বেশি সমস্যায় পড়বে পাকিস্তান৷

https://video.incrementxserv.com/vast?vzId=IXV533296VEH1EC0&cb=100&pageurl=https://kolkata24x7.in&width=300&height=400

পাকিস্তানি ওয়েবসাইট ডন রিপোর্ট অনুসারে, শনিবার পাকিস্তান বিদেশ মন্ত্রক আশা প্রকাশ করেছে, ভারত জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের (ইউএনএসসি) প্রেসিডেন্ট হিসেবে তার মাসব্যাপী মেয়াদকালে নিরপেক্ষভাবে কাজ করবে। বিদেশ মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জাহিদ হাফিজ চৌধুরী ডনের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, পাকিস্তান মনে করে ভারত তার মেয়াদকালে নিরাপত্তা পরিষদের সভাপতির আচরণ পরিচালনার জন্য প্রাসঙ্গিক নিয়ম মেনে চলবে।

কাশ্মীরের ক্ষোভ ফের তুলে ধরে পাকিস্তানি বিদেশ মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আরও বলেন, যেহেতু ভারত চেয়ারম্যানের এই পদটি দখল করেছে, আমরা তাকে আবারও স্মরণ করিয়ে দিতে চাই যে, তারা জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের জম্মু ও কাশ্মীরের উপর বাস্তবায়ন করছেন। প্রস্তাবগুলি পাকিস্তানের এই ভীতির কারণ,

ভারত যখন একমাস সভাপতিত্বের পদে থাকবে, তখন কাশ্মীর নিয়ে তারা আর প্রচার কাজ করতে পারবে না। এছাড়াও পাকিস্তানের ভয়ের একটি কারণ হল, আফগানিস্তানে তালিবানদের সমর্থন করে পাকিস্তান৷ যেখানে ভারত সবসময় সেখানে রাজনৈতিক সমাধান খোঁজার কথা বলেছে এবং শান্তির পক্ষে ছিল। এই পরিস্থিতিতে পাকিস্তান আশঙ্কা করছে, ভারত তার শাসনাকালে আফগানিস্তানে তার ঘৃণ্য প্রচেষ্টা সম্পন্ন করতে দেবে না।

প্রসঙ্গত, জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের সভাপতি হিসেবে ভারতের প্রথম কর্মদিবস সোমবার অর্থাৎ 2 আগস্ট হবে। তিরুমূর্তি জাতিসংঘ সদর দফতরে কাউন্সিলের মাসব্যাপী কর্মসূচির বিষয়ে একটি যৌথ সংবাদ সম্মেলন করবে৷ সেখানে বেশ কিছু লোক সেখানে উপস্থিত থাকবে এবং অন্যরা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সংযোগ করতে পারবে। জাতিসংঘ কর্তৃক প্রকাশিত কর্মসূচী অনুযায়ী, তিরুমূর্তি জাতিসংঘের সদস্য দেশগুলিকেও কাউন্সিলের সদস্য নয় এমন কাজের বিবরণ প্রদান করবে।

নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য হিসেবে ভারতের দুই বছরের মেয়াদ ২০২১ সালের ১ জানুয়ারি শুরু হয়েছিল। ২০২১-২২ মেয়াদে নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য হিসেবে এটিই ভারতের প্রথম সভাপতিত্বের পদ। আগামী বছরের ডিসেম্বরে ভারত আবার নিরাপত্তা পরিষদের সভাপতিত্ব করবে।

জাতিসঙ্ঘের সভাপতিত্বের সময় ভারত সামুদ্রিক নিরাপত্তা, শান্তিরক্ষা এবং সন্ত্রাস দমনের মতো বিষয়গুলিতে মনোনিবেশ করবে৷ এই বিষয়গুলিতে উচ্চ-স্তরের কর্মসূচির সভাপতিত্ব করবে এবং একটি কংক্রিট কৌশল তৈরির উপর জোর দেবে। তিরুমূর্তি বলেন, কাউন্সিলের অভ্যন্তরে এবং বাইরে ভারত সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করার ওপর জোর দিচ্ছে।