জামিন অমিল: বুধবার রাতেও জেলে থাকতে হবে আরিয়ানকে

186
ariyan khan

News Desk: শুনানি শেষ না হওয়ায় বুধবারও জামিন হল না শাহরুখ পুত্র আরিয়ান খানের। ফলে বুধবার রাতেও জেলেই কাটাতে হবে আরিয়ানকে। বৃহস্পতিবার বম্বে হাইকোর্টে ফের এই জামিন মামলার শুনানি হবে। মুম্বইয়ের প্রমোদতরী কর্ডেলিয়া থেকে ধৃত আরিয়ান ১৯ দিন হল জেল হেফাজতে রয়েছেন।

বুধবার বিকেল ৩ টে ৫০ মিনিট নাগাদ বম্বে হাইকোর্টে আরিয়ানের জামিনের আর্জির শুনানি শুরু হয়। কিন্তু নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে উভয় পক্ষের আইনজীবীর সওয়াল-জবাব শেষ না হওয়ায় আদালত শেষ পর্যন্ত এ দিনের শুনানি বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মুলতবি রাখতে বাধ্য হন। এই নিয়ে পরপর দু’দিন বম্বে হাইকোর্ট আরিয়ানের জামিনের আর্জির শুনানি মুলতবি রাখল। বিচারপতি এন সামব্রে জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটা থেকে এই জামিন মামলার শুনানি শুরু হবে।

এদিন জামিন না মেলায় বুধবারও যে আরিয়ানকে আর্থার রোড জেলেই থাকতে হবে তা স্পষ্ট। এদিন হাইকোর্টে এনসিবির হয়ে সওয়াল করেন অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল অনিল সিং। অন্যদিকে আরিয়ানের হয়ে সওয়াল করেন দেশের প্রাক্তন অ্যাটর্নি জেনারেল মুকুল রোহতাগি। এদিন রোহতাগি প্রায় দেড় ঘণ্টা তাঁর মক্কেলের জামিনের জন্য জোরদার সওয়াল করেন। রোহতাগির বক্তব্য শেষ হওয়ার পর বিচারপতি সামব্রে এনসিবির আইনজীবীর কাছে জানতে চান, তাঁর বক্তব্য রাখতে কতক্ষণ সময় লাগবে। এর উত্তরে অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন কমপক্ষে ১ ঘন্টা। এনসিবির আইনজীবীর ওই মন্তব্য শোনার পর বিচারপতি বলেন, তাহলে আজ আর সময় নেই। আগামীকাল বৃহস্পতিবার এই মামলার শুনানি হবে। শুনানি শুরু হবে বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার সময়।

আদালতের এদিনের শুনানি শেষে স্বস্তি ফিরল না খান পরিবারে। আরিয়ানের পাশাপাশি অপর দুই অভিযুক্ত আরবাজ মার্চেন্ট এবং মুনমুন ধামেচার জামিনের আর্জিও খারিজ হয়ে গিয়েছে। বুধবার শুনানি চলার সময় এনসিবির আইনজীবী আরিয়ান খানের একটি হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট আদালতে পেশ করেন। এক নায়িকার সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপে আরিয়ান মাদক নিয়ে লম্বা চ্যাট করেছেন। সেই চ্যাট-ই আইনজীবী বিচারপতির কাছে জমা দেন। ওই হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট খতিয়ে দেখেন বিচারপতি।

অন্যদিকে আরিয়ানের আইনজীবী তাঁর মক্কেলের জামিনের জন্য জোরদার সওয়াল করেন। আরিয়ানের আইনজীবী বলেন, তাঁর মক্কেল মাদক সেবন করেছিলেন এমন কোনও তথ্য-প্রমাণ এনসিবির কাছে নেই। তারপরেও এনসিবি কী করে আরিয়ানের জামিনের বিরোধিতা করছে। বিচারপতি উভয় পক্ষের বক্তব্য শোনার পর শেষ পর্যন্ত অবশ্য এ দিনের শুনানি স্থগিত রাখেন। বিচারপতি জানান আগামীকাল বৃহস্পতিবার এই মামলার শুনানি চলবে।

বোম্বে হাইকোর্টের এদিনের সিদ্ধান্তের ফলে স্বভাবতই উদ্বেগ বেড়েছে শাহরুখ ও গৌরী খানের। সূত্রের খবর, শাহরুখ এবং তাঁর স্ত্রী আরিয়ানের আইনজীবীর কাজে আদৌ সন্তুষ্ট নন। নিম্ন আদালতে আরিয়ানের জামিন না হওয়ায় একদফা আইনজীবী সতীশ মানসিন্ডেকে সরিয়ে দিয়ে নতুন আইনজীবী হিসেবে নিয়োগ করেন অমিত দেশাইকে। কিন্তু দু’দিন হাইকোর্টে শুনানি চলার পরেও আরিয়ানের জামিন করাতে পারলেন না অমিত।

যদিও অমিত এদিন আদালতে বলেন, এনসিবি তদন্ত করতেই পারে। কিন্তু প্রশাসনিক কারণে কারও মুক্তি আটকাতে পারে না। জামিনের আবেদন কখনওই তদন্তের উপর নির্ভর করে না। কিন্তু অমিত দেশাইয়ের এই যুক্তি আদালতে ধোপে টেকেনি। উল্লেখ্য ৩ অক্টোবর রাতে মুম্বাইয়ের প্রমোদতরী কর্ডেলিয়া থেকে এনসিবি শাহরুখপুত্র আরিয়ানকে আটক করেছিল। দীর্ঘ প্রায় ১৬ ঘণ্টা জেরা করার পর আরিয়ানকে গ্রেফতার করেছিল এনসিবি।

তিনদিন আরিয়ান ছিল নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরোর হেফাজতে। তারপর থেকেই শাহরুখপুত্র জেল হেফাজতে রয়েছেন। এই মুহূর্তে দেশের হাইপ্রোফাইল মামলাগুলির মধ্যে আরিয়ানের জামিনের মামলাটি অন্যতম। তাই স্বাভাবিকভাবেই বৃহস্পতিবার গোটা দেশের নজর থাকবে বম্বে হাইকোর্টের দিকে।