Gujarat Bridge Collapse: ব্ল্যাকে টিকিট কিনে বেশি লোক উঠেছিল, সেতু বিপর্যয়ে পুলিশকর্মীরা আটক

ভোটের জন্য সেতু সারাই করে দ্রুত খোলার অভিযোগে বিব্রত বিজেপি সরকার।

14
  • গুজরাটে সেতু ভেঙে ১৪০ অধিক নিহত
  • সেতুর নিচে অনেকে এখনও নিখোঁজ
  • প্রধানমন্ত্রী মোদী বললেন ‘দু:খজনক’
  • ভোটের জন্য সেতু সারাই করে দ্রুত খোলার অভিযোগে বিব্রত বিজেপি সরকার

গুজরাটের মোরবিতে ঝুলন্ত ব্রিজ ভেঙে (Gujarat Bridge Collapse)  কমপক্ষে ১৪১ জন নিহত। তবে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে এমনই আশঙ্কা। অভিযোগ, সরকারের তরফে মৃতের সংখ্যা চাপা দেওয়ার প্রবল চেষ্টা চলছে। সেতু বিপর্যয়ের পর থেকেই প্রশ্ন, বিধানসভা ভোটের আগে প্রধানমন্ত্রী মোদীকে খুশি করতেই তড়িঘড়ি সেতুটি সারিয়ে খুলে দেওয়া হয়েছিল। রবিবার সেটি ভেঙে পড়ে। পাশাপাশি উঠে আসছে টিকিট কালোবাজারি অভিযোগ।

সূত্রের খবর, ১৫ টাকার টিকিট ব্ল্যাকে ১৭ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছিল। কিন্তু এত মানুষের জমায়েত কীভাবে হলো তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

১৮৭৯ সালে তৈরি ব্রিজটি মেরামতির জন্য সাত মাস বন্ধ ছিল। কংগ্রেসের অভিযোগ নির্বাচনের জন্য তড়িঘড়ি চালু করা হয়েছিল ব্রিজটি। চারদিন আগে ব্রিজ খুলে দেওয়ার পরেই পাঁচ দিনের দিন রবিবার এই ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটেছে। সেতু সারাই করা সংস্থার বিরুদ্ধে একাধিক ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

নির্বাচনের মুখে এই দুর্ঘটনায় গুজরাট প্রশাসনের দিকেই বিস্তর অভিযোগের তীর যাচ্ছে। তদন্ত জারি রেখে অবিলম্বে পদক্ষেপ নিতে চাইছে গুজরাটের বিজেপি সরকার। ৮ জনকে আটক করার খবর পাওয়া যাচ্ছে।

gujrat

সোমবার সকালে এক কর্মসূচি থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, আমি এখানে আপনাদের সঙ্গে কথা বলছি, কিন্তু আমার মন পড়ে আছে সেতু দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের কাছে। আমার জীবনে এমন দুঃখ খুব কমই পেয়েছি। এক দিকে আমার মন ভারাক্রান্ত, অন্য দিকে আমি কর্তব্য পালন করে চলেছি। তিনি বলেন, গুজরাটের জন্য সারা দেশ প্রার্থনা করছে।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)