Saturday, February 4, 2023

রাজনৈতিক চমকের অপেক্ষায় বিহার, তিন বছর পর পাটনায় ফিরছেন লালুপ্রসাদ

- Advertisement -

News Desk: দীর্ঘ তিন বছর পর পাটনায় ফিরছেন প্রাক্তন রেলমন্ত্রী তথা আরজেডি নেতা লালু প্রসাদ যাদব। পশুখাদ্য কেলেঙ্কারিতে দোষী সাব্যস্ত হয়ে দীর্ঘদিন জেলবন্দি ছিলেন তিনি। জামিনে মুক্তি মিললেও শারীরিক অসুস্থতার কারণে দীর্ঘদিন ভর্তি ছিলেন দিল্লির এইমসে।

- Advertisement -

এসব কারণে টানা তিন বছর লালু বিহারের বাইরে ছিলেন। রবিবার সন্ধ্যায় স্ত্রী তথা রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী রাবড়ি দেবী এবং মেয়ে মিশাকে নিয়ে দিল্লি থেকে পাটনায় ফিরবেন তিনি। লালুর ফেরার অপেক্ষায় টানটান উত্তেজনা পাটনায়। একই সঙ্গে আরজেডির সদর দফতরেও।

রাজনৈতিক মহল মনে করছে, রাজ্যে ফিরে ফিরে বড় কোনও চমক দিতে পারেন লালু। এই মুহূর্তে নীতীশ কুমারের নেতৃত্বাধীন জেডিইউ ও বিজেপি জোট রাজ্যে ক্ষমতায় থাকলেও সরকারের হাতে প্রয়োজনীয় বিধায়ক সংখ্যা খুব বেশি নেই। একটু এদিক ওদিক হলে অর্থাৎ কয়েক জন বিধায়ক এই জোট ছেড়ে বেরিয়ে এলেই নীতীশ সরকারের পতন হতে পারে।

- Advertisement -

এরই মধ্যে রাজ্যের দুটি বিধানসভা কেন্দ্রে উপ নির্বাচন হচ্ছে। লালুপ্রসাদের মহাজোট ছেড়ে ইতিমধ্যেই বেরিয়ে গিয়েছে কংগ্রেস। এই দুই উপনির্বাচনে কংগ্রেস আলাদা করে লড়াইও করছে। এই অবস্থায় বহু যুদ্ধের নায়ক লালু কতটা চমক দিতে পারেন তার অপেক্ষায় প্রহর গুনছে রাজনৈতিক মহল। তাদের অনুমান, লালুপ্রসাদ রাজ্যে ফিরলে ঘোড়া কেনাবেচা শুরু হতে পারে। সেক্ষেত্রে জেডিইউ- বিজেপি সরকার ভেঙে গেলে ক্ষমতা দখল করতে পারে লালুপ্রসাদের আরজেডি। তবে শেষ পর্যন্ত কি হয় তা দেখার অপেক্ষায় রয়েছে গোটা দেশ।

দীর্ঘদিন জেলে কাটানো এবং বিভিন্ন রোগের কারণে লালুর শারীরিক অবস্থা অবশ্য বেশ দুর্বল। যদিও এইমসের চিকিৎসকরা লালুকে পাটনা ফিরে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছেন। লালুপ্রসাদ বিজেপি- জেডিইউ জোটে ফাটল ধরাতে পারেন এমন আশঙ্কা থাকলেও, তাঁর নিজের সংসারেও চলছে ক্ষমতার দ্বন্দ্ব। লালুপ্রসাদ বরাবরই তাঁর ছোট ছেলে তেজস্বী যাদবকে গুরুত্ব দিয়ে থাকেন। অন্যদিকে তাঁর স্ত্রী রাবড়ি দেবী বড় ছেলে তেজপ্রতাপকে আলাদা গুরুত্ব দেন।

লালুপ্রসাদের এই দুই ছেলের দ্বন্দ্ব আরজেডিতে প্রবল। কয়েকদিন আগে লালুর বড় ছেলে তেজপ্রতাপ অভিযোগ করেছিলেন, ভাই তেজস্বী তাঁর বাবা লালুকে দিল্লিতে গৃহবন্দী করে রেখেছেন। তবে এখন দেখার লালু রাজ্যে ফিরলে নীতীশ কুমার কী ভূমিকা নেন। রাজনৈতিক মারপ্যাঁচ বা কূটকৌশলের ক্ষেত্রে নীতিশের থেকে লালু অনেকটাই এগিয়ে। মুখ্যমন্ত্রী পদে থাকলেও বিজেপির সঙ্গে নীতীশের সম্পর্ক আদৌ ভাল নয়। লালু সম্পর্কের এই রসায়ন কতটা কাজে লাগাতে পারবেন তা নিয়ে কৌতুহলী হয়ে আছে রাজনৈতিক মহল। লালুপ্রসাদ দুই কেন্দ্রের উপনির্বাচনের প্রচার করবেন বলেও খবর। এখন দেখার রাজ্যে ফিরে লালু এবার কি চমক দেন।