৪০ শতাংশ আসনে মহিলা প্রার্থী দেওয়ার পথিকৃত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, জানতেন না প্রিয়াঙ্কা

185
Mamata Banerjee Priyanka Gandhi

নিউজ ডেস্ক, নয়াদিল্লি: উত্তর প্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনে ৪০ শতাংশ আসনে মহিলা প্রার্থী দেওয়ার কথা ঘোষণা করে আত্মতুষ্টিতে ভুগছিলেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। প্রিয়াঙ্কা দাবি করেন, কংগ্রেস এক ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কিন্তু প্রিয়াঙ্কার সেই ভুল ভাঙতে বিশেষ সময় লাগেনি।

কংগ্রেস নেত্রীকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অনেক আগেই এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়িত করেছেন। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৪১ শতাংশ আসনে মহিলা প্রার্থী দিয়েছিলেন। বর্তমান সংসদে তৃণমূল কংগ্রেসের ৪১ শতাংশ মহিলা সাংসদ আছেন। তাই ৪০ শতাংশ আসনে মহিলা প্রার্থী দেওয়ার কথা ঘোষণা করে নতুন কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি কংগ্রেস বা প্রিয়াঙ্কা। বরং কংগ্রেস তৃণমূল কংগ্রেসের দেখানো পথেই হেঁটেছে।

তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার বলেছেন, পুরোসভা এবং পঞ্চায়েত ভোটে তৃণমূল ৫০ শতাংশ আসনে মহিলাদেরই প্রার্থী করে থাকে। চলতি বছরে বিধানসভা নির্বাচনেও তৃণমূল কংগ্রেস প্রচুর মহিলা মহিলা প্রার্থী দিয়েছিল। তাই প্রিয়াঙ্কা যেটা করছেন তার মধ্যে নতুন কিছু নেই। বলা যেতে পারে তিনি তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দেখানো পথই অনুসরণ করেছেন। তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে মহিলা প্রার্থী দেওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছেন সে কথা জানতে পেরে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন প্রিয়াঙ্কা। তিনি বলেছেন, মমতাজি খুব ভালো কাজ করেছেন।

তৃণমূল কংগ্রেস ছাড়াও ওড়িশার শাসকদল বিজু জনতা দলও গত লোকসভা নির্বাচনে এক তৃতীয়াংশ আসনে মহিলা প্রার্থী দিয়েছিল। ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের ২১টি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে সাতটিতে মহিলা প্রার্থী দিয়েছিল বিজেডি।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বরাবরই নারীদের ক্ষমতায়নের পক্ষে সওয়াল করে এসেছেন। আমজনতার কাছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেদের কাছের মানুষ হিসেবেই পরিচিত। মুখ্যমন্ত্রীর মতো গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকেও এখনও তিনি জেলা সফরে গিয়ে হুটহাট ঢুকে পড়েন গৃহস্থের হোঁশেলে। মা, মাসিমা সম্মোধন করে কথা বলেন মহিলারা মহিলাদের সঙ্গে। এমনকী চায়ের দোকানে ঢুকে তিনি দোকানদারকে সরিয়ে নিজের হাতে চা করেন।

পদস্থ সরকারি আধিকারিক-সহ সঙ্গে থাকা সাংবাদিকদের তিনি নিজের হাতে সেই চা পরিবেশন করেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যা করেন সেটাই যে প্রথম এ ব্যাপারে রাজনৈতিক মহল নিশ্চিত। রাজনৈতিক মহল মনে করছে, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক দল মমতাকে অনুসরণ করে এগুনোর চেষ্টা করছে। তাই ৪০ শতাংশ আসনের মহিলা প্রার্থী দিয়ে প্রিয়াঙ্কা যে আত্মসন্তুষ্টির কথা জানিয়েছিলেন মমতার কাছে তা ভোঁতা হয়ে গিয়েছে। রাজনৈতিক মহল একবাক্যে জানিয়েছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আজ যা করেন গোটা দেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা-নেত্রীরা অনেক পরে সেটা করেন।

অন্যদিকে বিজেপি অবশ্য কংগ্রেসের এই সিদ্ধান্তকে যথারীতি কটাক্ষ করেছে। বিজেপি দাবি করেছে, কংগ্রেস যখন ক্ষমতায় থাকে তখন মহিলাদের কথা তাদের মাথায় থাকে না। এখন ক্ষমতা পাওয়ার জন্য তারা মরিয়া হয়ে উঠেছে। সে কারণেই এই সিদ্ধান্ত কংগ্রেসের।