Partition of Bengal: জঙ্গি জীবন সিংহর জন্য বিশেষ পদ? তীব্র বিতর্কে বিজেপি

উত্তরবঙ্গ, বিহার ও অসমের বিস্তির্ণ অংশ নিয়ে বিশেষ কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল গঠন?

65
BJP's emphasis on militant Jibon Singh's argument speculation of a separate North Bengal

আলাদা কামতাপুর গঠন না হলে ‘রক্তগঙ্গা বইয়ে দেব’ এমন হুমকি দেওয়া কেএলও (KLO) জঙ্গি নেতা জীবন সিংহ (Jibon Singh) ভারত সহ আরও তিনটি দেশের সরকারের খাতায় ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’। এমন বিচ্ছিন্নতাবাদী জীবন সিংহকে বিশেষ পদ দিয়ে কেন্দ্র সরকার একটি নতুন কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল (Union Teritory)  গঠনের প্রক্রিয়া করেছে। পশ্চিমবঙ্গকে ভাগ করার (partition of bengal) এমনই খবর ‘উত্তরবঙ্গ সংবাদ’ করার পর থেকে রাজনৈতিক মহলে তীব্র শোরগোল।

  • KLO প্রধান জীবন সিংহ। তার আসল নাম তামির দাস
  • জলপাইগুড়ি জেলার ধূপগুড়িতে প্রকাশ্যে ৫ CPIM নেতাকে খুন করেছিল KLO
  • জীবন সিংহের ভারত বিরোধী জঙ্গি শিবির চলত ভুটানে

উত্তরবঙ্গ জুড়ে আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল গঠন করে তার প্রধান হিসেবে জীবন সিংহকে বসানো হবে। আত্মগোপনে থাকা জঙ্গি নেতাকে অসমের একটি কেন্দ্র থেকে ভোটে জিতিয়ে এনে নতুন গঠিত হতে চলা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের ‘মুখিয়া’ বানানোর খবরে তীব্র বিতর্কে বিজেপি।

এ রাজ্যের বিরোধী দল বিজেপি কেন এক মোস্ট ওয়ান্টেড জঙ্গি নেতাকে এমন পদমর্যাদা দিতে চলেছে তা নিয়েই বিতর্ক। এ বিষয়ে কোনও বিজেপি নেতা মুখ না খুললেও বারবার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী পৃথক উত্তরবঙ্গের কথা বলেছেন। তাঁর সুরে সুর মিলিয়েছেন শিলিগুড়ির বিজেপি বিধায়ক শংকর ঘোষ সহ উত্তরবঙ্গের বিজেপি সাংসদ, বিধায়করা।

তৃ়ণমূল কংগ্রেস নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও বারবার হুঁশিয়ারি দিয়েছে জীবন সিংহ। আর পৃথক রাজ্য হবে না বলে বার্তা দিয়েছে সিপিআইএম।

BJP's emphasis on militant Jibon Singh's argument speculation of a separate North Bengal

Operation All Clear: বাম জমানায় গণহত্যাকারী জীবন সিংহকে তাড়িয়েছিল ভুটান সরকার

আলিপুরদুয়ারের কুমারগ্রামের বাসিন্দা তামির দাস ওরফে জীবন সিংহর নির্দেশে ২০০২ সালে জলপাইগুড়ির ধূপগুড়িতে হামলা চালিয়েছিল কেএলও। পাঁচ সিপিআইএম কর্মীকে খুন করে তারা। তবে তৃণমূল কংগ্রেস সরকার ক্ষমতায় আসার বাম আমলে ধৃত ধূপগুড়ি হামলার জঙ্গিরা জামিন পায়। এরপর দীর্ঘ সময় কেএলও নেতা নীরব ছিল। ‘উত্তরবঙ্গ সংবাদ’ জানাচ্ছে  উত্তরবঙ্গ কেটে যে নতুন কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার প্রস্তাব আছে তাতে প্রধান পদ পাবে জীবন সিংহ। এই জঙ্গি নেতাকে বিশেষ নিরাপত্তা দিয়ে শিলিগুড়িতে আনা হবে। 

জীবন সিংহ পলাতক। তাকে পেতে মরিয়া ভারত, নেপাল, বাংলাদেশ ও মায়ানমার সরকার। বিভিন্ন সময়  গোয়েন্দা রিপোর্টে উঠে এসেছে জীবন সিংহ উল্লিখিত দেশগুলিতে গোপনে সংগঠন চালাচ্ছে। তার সাম্প্রতিক সবকটি ভিডিও বার্তা বিশ্লেষণ করে চলেছে গোয়েন্দা বিভাগ। তবে হদিস মেলেনি।

২০০৩-২০০৪ সালে ভুটান সরকারের সেনাবাহিনী (Royal Bhutan Army) ‘অপারেশন অলক্লিয়ার’ চালিয়ে একযোগে সাতটি ভারত বিরোধী জঙ্গির ঘাঁটি উচ্ছেদ করেছিল। দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম এই জঙ্গি দমন অভিযানের পর থেকে কামতাপুর লিবারেশন অর্গানাইজেশন অর্থাৎ KLO সংগঠনের প্রধান জীবন সিংহ আত্মোগোপনে আছে।

(সব খবর, সঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে পান। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram এবং Facebook পেজ)